আক্কেলপুরে ছাত্রদলের এক কমিটিতেই ১৪ বছর পার!

নিয়াজ মোরশেদ.আক্কেলপুর(জয়পুরহাট) : ছাত্রজীবন শেষ হয়েছে এক যুগ আগে। বয়স পঞ্চাশের কোটায়। কারও কারও ছেলে স্কুলে পড়ছে। কেউ আবার এখনও বিয়েই করেন নি। কিন্তু তারাই এখনও নেতৃত্ব দিচ্ছেন জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলা ছাত্রদলের।
জেলা ছাত্রদলের কমিটিকে একাধিকবার জানিয়ে তারা আক্কেলপুর উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি ভেঙে দেয় নি এমন অভিযোগ করেন সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রশিদ ইকু।

অভিযোগ রয়েছে, জেলা ও উপজেলায় ছাত্রদলের পরিচয়ে কিছু ফেস্টুন টানিয়ে নিজেদের প্রচার করলেও এসব নেতার অনেকেই এখন রাজপথে নেই।
জেলা ও উপজেলা ছাত্রদল সূত্রে জানা যায়, ২০০৩ সালে জেলা ছাত্রদলের সম্মেলন হয়। এতে রিয়াদ মোহাম্মদ জিয়া উদ্দিন সেকেন্দার জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি,সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রশিদ ইকু,সহসভাপতি রফিকুল ইসলাম চপল নির্বাচিত হন। এই কমিটির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ ৭১ সদস্যের কারোরই ছাত্রত্ব নেই। কেউ বিয়ে করে সংসারী হয়েছেন, কেউবা ব্যবসায়ী,কেউবা বিয়ে না করেই পারি দিয়েছেন জীবনের অর্ধেক।

দলের ত্যাগী তরুণ নেতারা নতুন কমিটি গঠনের চেষ্টায় একাধিকবার ব্যর্থ হয়ে এখন তাদের অভিযোগ, ‘বুড়ো’ ছাত্রদল নেতারা কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রভাবিত করে কমিটি গঠন বারবার পেছাচ্ছেন। তৎকালীন বিএনপির জয়পুরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার গোলাম মোস্তফা এই কমিটি গঠন করেছিলেন। এবং সাধারণ সম্পাদকের দ্বায়ীত্ব দিয়েছিলেন আমিনুর রশিদ ইকুকে। সেই থেকেই বিগত ১৪ বছর ধরে একই কমিটি দিয়েই চলছে উপজেলা ছাত্রদল। অছাত্রদের হাতে ছাত্রদলের রাজনীতি থাকায় নেতাকর্মীরা বিভক্ত হয়ে পড়েছেন। দলীয় নানা কর্মসূচি পালনে তাই কমিটি ব্যর্থ হচ্ছে বলে অভিযোগ তরুন ছাত্রদল সদস্যদের।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ছাত্রদল নেতা বলেন, ২০০৩ সালের কমিটির সভাপতি,সাধারণ সম্পাদক পুরনো কমিটি ভেগে নতুন করে উপজেলা কমিটি গঠন করতে কোন সহযোগীতা করছে না। বড়ং তারাই কমিটি ধরে রাখতে চাই।
উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রশিদ ইকু বলেন,নতুন প্রজন্মের নতুন ছেলেরা কমিটিতে আসুক এইটা আমার চাওয়া।এখানে থানা ছাত্রদল শুধু ইউনিয়ন ছাত্রদল গঠন করতে পারে।থানা,পৌর ও কলেজ এই তিনটি জেলা ছাত্রদল গঠন করতে পারবে। জেলা ছাত্রদলকে একাধিকবার বলার পরেও এই কমিটি ভাঙেনি বা অনুমোদন করেনি। শুধু আক্কেলপুরেই নয় জয়পুরহাটের পাঁচ থানাতেই নতুন কোন কমিটি দেয় নি জেলা ছাত্রদলের কমিটি। পুরাতন কমিটি দিয়েই চলছে থানা ছাত্রদলের সকল কার্যক্রম। এতে ভেঙে পরছে ছাত্রদলের নতুন প্রজ¤েœর রাজনীতি।
জেলা ছাত্রদলে সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি রিয়াদ মোহাম্মদ জিয়া উদ্দিন সেকেন্দারের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য দেওয়া সম্ভব হয়নি।