আক্কেলপুরে ৪র্থ শ্রেণীর স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা, থানায় মামলা

নিয়াজ মোরশেদ: জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে ৪র্থ শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে মোস্তফা(২৭) নামে এক যুবক ধর্ষনের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মোস্তফা উপজেলার মোহনপুর সোনারপাড়া গ্রামের আফছের আলীর পুত্র। ওই ঘটনায় আক্কেলপুর থানায় একটি মামলা হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার দুপুরে উপজেলা মোহনপুর সোনারপাড়া গ্রামে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত মোস্তফা(২৭) পলাতক রয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও থানায় এজাহার সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার পুন্ডুরিয়া গ্রামের পুন্ডুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রী তার নানার বাড়ি মোহরপুর সোনারপাড়া গ্রামে বেড়াতে এসেছিল। গত বুধবার দুপুরে সে বাড়ির পাশে বেড়াতে গেলে একই গ্রামের আফছার আলীর পুত্র মোস্তফা(২৭) তাকে জোরপূর্বক উঠিয়ে নিয়ে একটি কলাবাগানে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে মেয়েটি আসামী মোস্তফার কাছ থেকে পালিয়ে এসে বিষয়টি বাড়ির লোকজনকে জানায়। পরে তার পরিবারের পক্ষ থেকে মেয়েটির মামা জামাল হোসেন বাদি হয়ে মোস্তফার বিরুদ্ধে আক্কেলপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

স্কুল ছাত্রীর দাদা আবুল কাসেম বলেন, আমার ছেলে ও ছেলের বউ ঢাকায় একটি বেসরকারি কোম্পানিতে চাকুরি করে। মেয়েটি আমার কাছে থাকে। কয়েক দিন আগে সে তার নানার বাড়ি মোহনপুর সোনারপাড়া গ্রামে বেড়াতে গিয়েছিল। সেখানে ওই গ্রামের মোস্তফা আমার নাতনীর সর্বনাষের চেষ্টা করেছে। আমি এর বিচার চাই।

স্কুল ছাত্রীর মামা জামাল হোসেন বলেন, গত বুধবার বেলা অনুমান ১২ টার দিকে আমার ভাগনী বাড়ির পাশে বেড়াতে গিয়েছিল। এসময় আমাদের গ্রামের মোস্তফা ভাগনীকে জোরপূর্বক উঠিয়ে নিয়ে একটি কলাবাগানে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করলে ভাগনী কৌশলে পালিয়ে বাড়িতে এসে বিষয়টি জানায়। ওই ঘটনার পর লম্পট মোস্তফা আমাকে ফোন করে বলে, বিষয়টি যেন কাউকে না জানায়, জানালে সমস্যা হবে। পরে ওই দিন বুধবার রাতে আক্কেলপুর থানায় এসে মোস্তফার বিরুদ্ধে মামলা করেছি।

আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) সিরাজুল ইসলাম বিজ্ঞাপন চ্যানেলকে বলেন, ৪র্থ শ্রেণীর স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে থানায় ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে(সংশোধনী ২০০৩) ধর্ষণের চেষ্টা করার অপরাধে মোস্তফার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আসামীকে ধরার জোর চেষ্টা চলছে।