আড়াল জি এল স্কুল এন্ড কলেজে সন্ত্রাসী হামলা, শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মিছিল

স্টাফ রিপোর্টার: গাজীপুরের কাপাসিয়ার আড়াল জি এল স্কুল এন্ড কলেজে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ এবং জড়িতদের গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, কুশপুত্তলিকা দাহ ও মানববন্ধন করেছে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থীরা।

আজ ২৩ এপ্রিল রোববার  সকাল থেকে কলেজ ক্যাম্পাস ও আশপাশ সড়কে এসব কর্মসূচী পালন করেন তারা ।

সরেজমিনে জানা যায়, প্রতিবারের  ন্যায় এবারও বৈশাখী মেলা বসে আড়াল জি এল স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে। মেলা শুরু হয় গত রোববার আর শেষ হয় শুক্রবার। এই মেলায় নাগরদোলা সহ বিভিন্ন স্টল মালিকদের কাছে মোটা অঙ্কের চাঁদা দাবী করে আড়াল গ্রামের ফালাইন্নার বখাটে ছেলে ‘জেলখাটা’ সোহাগ মিয়া ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা। তলবকৃত চাঁদা দিতে বাধা দেওয়ায় তারা গত বৃহস্পতিবার বিকেলে আড়াল জি এল স্কুল এন্ড কলেজের গেট দারোয়ান মো: মাসুদকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে।

এতেও তারা ক্ষান্ত হয়নি, আজ সকালে ওই সন্ত্রাসীরা নানা অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষের কার্যালয়ে এসে অধ্যক্ষ মোঃ মনিরুজ্জামানকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। তারা প্রকাশ্যে ধারালো খোর, লাঠিসোডা নিয়ে এক ক্লাসে গিয়ে ছাত্র/ছাত্রীদের উপর অতর্কিতে হামলা চালায় এবং শিক্ষকদের হুমকি দেয়।

এ ঘটনার খবর অন্যান্য ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে ছড়িয়ে পড়লে তারা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। এসময় ছাত্র-ছাত্রীরা ক্লাস বর্জন করে রাস্তায় নেমে এসে জড়িতদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে সড়ক অবরোধ, বিক্ষোভ মিছিল, কুশপুত্তলিকা দাহ ও মানববন্ধন করে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ ব্যাপারে প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি ও কাপাসিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রেজাউর রহমান লস্কর মিঠু বিজ্ঞাপন চ্যানেলকে জানান,  আমি শুনেছি কলেজে ভযাবহ ঘটনা ঘটেছে। অধ্যক্ষকে বলেছি ব্যবস্থা নিতে।

জানতে চাইলে আড়াল জি এল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মনিরুজ্জামান বলেন, আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্কুল-কলেজ মিলে এক হাজারেরও বেশি ছাত্র-ছাত্রী লেখা পড়া করে। চাঁদার জন্য বহিরাগত সন্ত্রাসীরা নিরীহ শিক্ষক-শিক্ষার্থী-কর্মচারীদের উপর হামলা চালানোর ঘটনা থানার ওসি,  উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ঘটনাটি অবহিত করেছি।

কাপাসিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক বিজ্ঞাপন চ্যানেলকে জানান, হামলার খবর পেয়ে দ্রুত পুলিশ পাঠিয়েছি। এখনও লিখিত এজাহার পায়নি। তবে সোহাগ গংকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।