এখন কাউয়ারাই সবচেয়ে ভাল আছে!

শেখ জসিম উদ্দিন: যারা রাজনীতি করেন, তারা তাদের নেতা বা বড় ভাইদের সকালে বাসায় গিয়ে হাজিরা দেওয়া থেকে শুরু করে সারাদিন একটা কর্মীর কতবার যে ভাই ভাই করতে হয় তার কোনো হিসাব থাকেনা। অথচ সারাদিনে অনেকেই তাদের বাবা-মাকে একবারও খোঁজখবর নিতে মনে থাকেনা। তবুও বাবা-মা সন্তানের মঙ্গলের জন্য সব সময় প্রার্থনা করেন।

যে আশা-ভরসা নিয়ে নেতাদের পিছনে কর্মীরা দৌড়ায়, অনেকেই তাদের কাছ থেকে নূন্যতম ভালবাসাটুকুও পায় না। আমাদের প্রিয় নেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা একটি রাষ্ট্রের প্রতিনিধিত্ব করেও তার নেতা-কর্মীদের খোঁজখবর রাখেন।

অথচ মাঠ পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা তাদের নিজ নিজ ইউনিটের নেতা/ভাই/লিডারদের দিনের পর দিন, মাসের পর মাস, বছরের পর বছর ভাই ভাই করে যান। কিন্তু এই বড় নেতারা কি বছরে একদিনও এই কর্মীদের ফোন করে খবর নেন? নেননা, কারন তাদের সম্মান কমে যাবে! তারা যে অনেক বড় সেলিব্রেটি।কিন্তু এটা কাদের দিয়ে? এই কর্মীদের দিয়ে। রাজনীতি করতে এসে অনেকেই এখন মানবেতর জীবন যাপন করছে। কিন্তু তবুও মনের টানেই রাজনীতি টা করছে।

ফেসবুক থেকে দেখলাম হাইব্রীড অর্থ নাকি” কাউয়া”।

আর এখন এই কাউয়ারাই সবচেয়ে ভাল আছে। কারন তাদের প্রেজেন্টেশন আমাদের নেতাদের খুব পছন্দ হয় তাই, আর অনেক বড় নেতারাও জানেন না কে সুদিনের আর কে দুর্দিনের। কারন বড় বড় নেতারাও যে অনেকে কাউয়া ( হাইব্রীড)।

লেখক : শেখ জসিম উদ্দিন, উপ-আপ্যায়ন বিয়ষক সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ।