এতিমদের টাকা পর্যন্ত বিএনপি চুরি করেছে : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

স্টাফ রিপোর্টার: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এতিমদের সম্পদ মেরে খেলে তাদের শাস্তি পেতে হয়, আজ সেই শাস্তি খালেদা জিয়াও পেয়েছেন। অন্যায় করলে যে শাস্তি পেতে হয়, আজ তা প্রমাণিত হয়েছে।

তিনি খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ করে বলেন, লজ্জা থাকলে জীবনে আর লুটপাট করবে না, মানুষের অর্থসম্পদ কেড়ে নেবেন না।

প্রধানমন্ত্রী আজ বিকেলে বরিশাল নগরের বঙ্গবন্ধু উদ্যানে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এতিমদের জন্য যে টাকা এসেছে, সে টাকা এতিমের কাছে চলে যাবে, সেটা তাদের কাছে কেন থাকবে? এতিমের টাকা খেয়ে আজ ধরা পড়ে গেছে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় আসে এ দেশের সম্পদ লুটপাট করতে আর দেশের মানুষকে অত্যাচার করার জন্য। অন্যদিকে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশ ও মানুষের উন্নয়ন হয়, দেশ এগিয়ে যায়। তারা আগুন দিয়ে, পেট্রলবোমা মেরে মানুষ হত্যা করেছে। এতিমদের টাকা পর্যন্ত তারা চুরি করেছে।

এরপর তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে ব্রিটিশ নাগরিক ফ্রান্সিস লুসি হল্টের হাতে ১৫ বছরের জন্য মাল্টিপল ভিসা ও পাসপোর্ট তুলে দেন। ৮৭ বয়সী মানবদরদি এই নারী মুক্তিযুদ্ধকালে যশোরের একটি হাসপাতালে নয় মাস যুদ্ধাহত মানুষের সেবা করেছেন। তিনি বর্তমানে বরিশালের অক্সফোর্ড মিশনে অবসরজীবন কাটাচ্ছেন এবং শিশুদের বিনা বেতনে ইংরেজি পড়ান। লুসি হল্ট এই দেশের মাটিতে চিরনিদ্রায় শায়িত হওয়ার ইচ্ছা ব্যক্ত করে কয়েকবার নাগরিকত্বের আবেদন করেও পাননি।

বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর সভাপতিত্বে জনসভায় আরও বক্তব্য দেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম প্রমুখ।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী আজ দুপুরে বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার লেবুখালী এলাকায় দেশের ৩১তম শেখ হাসিনা সেনানিবাস উদ্বোধনের পর বেলা সাড়ে তিনটায় প্রধানমন্ত্রী জনসভাস্থল নগরের বঙ্গবন্ধু উদ্যানে পৌঁছান। এরপর বরিশালের ৩৯টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ৩৩টি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।