কাপাসিয়ায় প্রাইভেট হাসপাতালগুলোর উপর নজরদারি বৃদ্ধির নির্দেশ

বেসরকারি ক্লিনিক

কাপাসিয়া (গাজীপুর) প্রতিনিধি: সেবার মান বাড়ানো ও সুস্থ্ পরিবেশ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কাপাসিয়া উপজেলায় অবস্থিত প্রাইভেট হাসপাতালগুলোর উপর নিবীড় নজরদারি বৃদ্ধির জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ প্রদান করেছেন সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও কাপাসিয়া হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির উপদেষ্টা সিমিন হোসেন রিমি এমপি।

১০ আগষ্ট বিকাল ৩টায় কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির মাসিক সমন্বয় সভায় প্রধান অতিথির আলোচনায় তিনি এই নির্দেশ দেন।

সভায় সিমিন হোসেন রিমি এমপি আরও বলেন, উপজেলায় বেসরকারি ক্লিনিকগুলোর লাইসেন্স নবায়ন হয়েছে কিনা? নবায়ন হলে শর্ত মাফিক কাজ করছে কিনা? তিনি উপজেলায় গড়ে উঠা ক্লিনিক গুলোর অবকাঠামো, রোগির সেবা নিশ্চতকরণ এবং নার্সিং সেবার মান আছে কিনা জানতে চেয়েছেন। এছাড়া বৈধ লাইসেন্স এর কাগজ পত্র যাচাই বাছাই এর জন্য পদক্ষেপ নিতে বলেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাকছুদুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা.আবদুস সালাম সরকার, হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মুহম্মদ শহীদুল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান প্রধান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রেজাউর রহমান লস্কর মিঠু, আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. হাসান জামিল কল্লোল, ডা. আয়েশা সিদ্দিকা, কাপাসিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার মোহাম্মদ আ. রহিম, নার্সিং অফিসার নাজমা সুলতানা, মাহবুবা খাতুন, নাসিং সুপারভাইজার জাকিয়া জেসমিন প্রমুখ।

ডা. আবদুস সালাম সরকার বলেন, কাপাসিয়া উপজেলায় নব নির্মিত সৈয়দা জোহুরা তাজউদ্দীন  মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র, পাবুর মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র, তারাগঞ্জ মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র চালু এবং কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোর স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতকরণ বিষয়ে আলোচনা হয়।

তিনি আরও বলেন, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শীঘ্রই রোগী বহনের জন্য ২টি ট্রলি, ২টি হুইল চেয়ার, পুরুষ ও মহিলা ওয়ার্ডের জন্য ২টি সোলার ও পানির ফিল্টারের ব্যবস্থা করা হবে।

সভায় বলা হয়, কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সিজারিয়ান অপরেশন চালু আছে। কিন্তু স্থায়ী চিকিৎসক নেই। স্থায়ী চিকিৎসক ও অকেজো জেনারেটর চালু ব্যাপারে আলোচনা হয়। ব্যায়বহুল এক্সরে মেশিন পরিচালনায় অপারেটর আনার জন্য সভায় বিশেষভাবে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, কাপাসিয়া উপজেলাস্থ প্রাইভেট হাসপাতালগুলোর চিকিৎসা, শৃঙ্খলা ও পরিবেশ নিয়ে দীর্ঘ অভিযোগ বহুদিনের।এছাড়া, এসকল হাসপাতালে রয়েছে তথাকথিত “নার্স”। যাদের কেউ কেউ স্কুলের বারান্দায়ও যায়নি। বাংলাদেশ নার্সিং কাউন্সিলের সনদ নেই অনেকেরই। তারা প্রায়ই হাসপাতালে অবৈধ যৌনচারে জড়ায়।এ নিয়ে একাধিক গণমাধ্যমে সংবাদও প্রকাশিত হয়।এমতাবস্থায়, বঙ্গতাজ কন্যা সিমিন হোসেন রিমি এমপি কাপাসিয়ায় প্রাইভেট হাসপাতালগুলোর উপর নজরদারি বৃদ্ধির নির্দেশ দিয়েছেন। তাঁর এই নির্দেশনাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন উপজেলাবাসী।

আরও পড়ুন : কাপাসিয়া শীতলক্ষ্যা হাসপাতালে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগ