কাপাসিয়ায় আ’লীগ নেতার বাড়িতে আগুন

গাজীপুর প্রতিনিধিঃ  গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার চিনাডুলি গ্রামের ২ নং ওয়ার্ড আ’লীগ সহ সভাপতি মনিরুল হক গোলাপের বাড়ির মাটির ঘরের টিনের চাল, ঘরের আসবাবপত্র রহস্যজনক ভাবে পুড়ে গেলে আনুমানিক ২০ লাখ টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে বলে জানা যায়।

অল্পের জন্য বেঁচে গেছেন পাশের ঘরে থাকা বয়োবৃদ্ধ পিতা মাতা। ঘটনাটি ঘটেছে গত শুক্রবার দিবাগত রাত আনুমানিক ৩ টায়।

গোলাপ জানান, আমি ঢাকায় ছিলাম। ৩০ জানুয়ারি শনিবার সকাল ৪ টার দিকে মোবাইল ফোনে জানতে পারি আমার বসত ভিটা পুড়ে গেছে। জীবনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত নিজ বাড়িতে যা কিছু করেছি সব শেষ হয়ে গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী প্রতিবেশি মনোয়ারা বেগম জানান, আমরা আইসা দেখি আগুন জ্বলতেছে। দরজা খোলার চেষ্টা করছে ঘরের ভিতরে থাকা লোকজন। এক পর্যায়ে তারা বাহির হইয়া আসে। শত শত মানুষ আইসা পানি বালু দিয়া আগুন নিভানোর চেষ্টা করছে। এক পর্যায়ে আগুন নিভে যায় তখন আর কিছুই রইল না।

গোলাপের বাবা হাজী আলীম উদ্দিন বলেন, আমি সজাগ হইয়া দেহি বৃষ্টির মত শব্দ হয়, আলো দেইখ্যা উইঠা দেখি আগুন। চিৎকার দিলে পাশের লোক জন আইসা সাহায্য করে। জানিনা কিভাবে আগুন লাগছে। তবে নাম  প্রকাশে অনিচ্ছুক লোক জন জানান, স্বাধীনতা বিরোধী চক্র প্রতিশোধের বশবর্তী হয়ে এ নেতার বাড়ি পুড়িয়ে দিতে পারে। কারণ গত ৩১ ডিসেম্বর স্থানীয় এক সভায় মানবতা বিরোধী ও যুদ্ধাপরাধীর বিরুদ্ধে বলিষ্ঠকন্ঠে বক্তব্য দেন গোলাপ।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন কাপাসিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এড. রেজউর রহমান লস্কর মিঠু, তরগাঁও ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি আইয়ুবুর রহমান সিকদার, ইউপি সদস্য আশিকুল ইমান সোয়েব সহ নেতৃবৃন্দ। গোলাপ বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর (অব: ) সদস্য। সে ৩ ছেলে ১ মেয়ে নিয়ে ঢাকায় বসবাস করেন। কাপাসিয়া থানার ডিউটি অফিসার এস আই সেন্টু মিয়া জানান, এ ব্যাপারে কোনো অভিযোগ পায়নি অভিযোগ পেলে তদন্ত করে দেখব।