কাপাসিয়ায় মাকে নির্যাতন করায় জনতার পিটুনিতে ছেলের মৃত্যু

কাপাসিয়া (গাজীপুর) প্রতিনিধি : নিজ মাকে অমানুষিক নির্যাতন করায় সন্তানকে পিটিয়ে মেরেছে এলাকাবাসী। ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুরের কাপাসিয়ায়। নিহতের নাম মো. আলম (৪৫)। সে উপজেলার সনমানিয়া গ্রামের মৃত ইউছুব আলীর ছেলে।

কাপাসিয়া থানার এস আই মো: মোখলেছুর রহমান ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, আলম নেশায় আসক্ত। বিদেশে পাঠানোর কথা বলে ও নানা কারণে সময়ে অসময়ে মায়ের কাছে টাকা দাবী করত। অপরাগতা প্রকাশ করলে ওই যুবক তার মাকে শারিরীক নির্যাতন করত। গত প্রায় আট মাস আগে ঝগড়া করতে গিয়ে তার মায়ের পরনের কাপড়চোপর ছিঁড়ে ফেলে। গত তিন দিন আগেও তার মাকে শারিরীক নির্যাতন চালিয়ে তার মায়ের মাথা ফাটিয়ে বাম হাতের কুনুইয়ের হাড় ভেঙ্গে ফেলে।

আহত অবস্থায় তার মাকে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। ২৫ জুলাই মঙ্গলবার সকালে আবারও মাকে মারধোর করায় এলাকাবাসী তার বাড়ীতে জড়ো হয়। পরে উত্তেজিত জনতা জিঙ্গাসাবাদের এক পর্যায়ে আলমকে বেধড়ক পিটুনি দিলে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়।

পুলিশ জানায়, নিহত আলমের লাশ তার বসতভিটা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জানান, যুবকটি নেশায় আসক্ত এবং তার মাকে অমানুষিক নির্যাতন করত। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে এলাকাবাসী তাকে গণপিটুনি দেয়।