কাপাসিয়ায় যৌতুক চাওয়াকে কেন্দ্র করে ছেলের হাতে পিতা খুন

অধ্যাপক শামসুল হুদা লিটন: গাজীপুরের কাপাসিয়ায় যৌতুক চাওয়াকে কেন্দ্র করে ছেলের হাতে পিতা খুন হয়েছেন। তাকে দা ও শাবল দিয়ে কোপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। নিহতের নাম আব্দুল কাদির (৭৫)। আজ শনিবার বিকেলে উপজেলার বাঘিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বৃদ্ধকে বাঁচাতে গিয়ে আহত হয়েছেন আরো দু’জন।

আহতরা হলেন- বৃদ্ধের ছোট ছেলে জুয়েল (৩৮) ও নাতিন মাসুম (২২)। জুয়েলকে গুরুতর অবস্থায় কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে। হামলায় অভিযুক্ত ছেলে বাদল ঘটনার পর পালিয়ে গেছেন।

নিহতের জামাতা ইকবাল হোসেন জানান, গত কিছুদিন আগে বৃদ্ধ আব্দুল কাদির তার নাতিন মাসুমকে (২২) বিয়ে দেন। বাদল কয়েকদিন আগে থেকে মাসুমের শ্বশুর বাড়ি থেকে যৌতুক এনে দিতে মাসুমকে চাপ দিতে থাকে। এ নিয়ে শনিবার বিকেল ৪টার দিকে বাবার সঙ্গে বাদলের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে বাদল দা ও শাবল নিয়ে তার বাবার ওপর হামলা করে। কুপিয়ে বৃদ্ধের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত জখম ও ডান হাত কেটে ফেলে।এতে ঘটনাস্থলেই বৃদ্ধের মৃত্যু হয়। হামলা থেকে বাঁচাতে আসলে বাদলের ছোট ভাই জুয়েল (৩৮) ও ছেলে মাসুমকেও কুপিয়ে আহত করা হয়। বাদলের ছোট ভাই জুয়েলকে গুরুতর অবস্থায় কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে।

এলাকার ইউপি সদস্য আশিকুল ইমান সোহেল বিজ্ঞাপন চ্যানেলকে জানান, পরিবারের মধ্যে দীর্ঘ দিন থেকে জমি জমার ভাগ নিয়ে বাবা ছেলের মধ্যে বিরোধ চলছিল।  বাদল বেকার বিভিন্ন অপরাধ মুলক কাজে জড়িত বলেও জানান তিনি ।

কাপাসিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক বিজ্ঞাপন চ্যানেলকে জানান, ঘটনার পর পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে যায়। লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। থানায় মামলা হয়েছে। ওসি আরও বলেন, জমিসংক্রান্ত বিরোধ নাকি যৌতুক কী কারণে এই হত্যাকান্ড ঘটেছে তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।