কাপাসিয়ায় ৪ বাড়িতে ডাকাতি, গ্রেফতার ৯

কাপাসিয়া (গাজীপুর) প্রতিনিধি: গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার বড়জোনা ও বরুন গ্রামে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ডাকাতি করে পালানোর সময় এলাকাবাসীর সহায়তায় ৯ ডাকাতকে আটক করেছে পুলিশ। এসময় ডাকাতির মালামাল উদ্ধার করা হয়।

ডাকাতিকালে ডাকাতের হামলায় গৃহকর্তা চান মিয়া ওরফে চানু বেপারী (৬৫),ও তার স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৪৫), তার ভাই হেলাল মিয়া (৪৭), কাপাসিয়া থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) মনিরুজ্জামান খাঁন এবং গণপিটুনিতে ৯ ডাকাত সহ মোট ১৩ জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। আহতদের কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে বড়জোনা এলাকার চানু বেপারীর বাড়ির কলাপসিবল গেইট কেটে ১০/১৫ জনের ডাকাত দল দরজা ভেঙ্গে বসতঘরে ঢুকে মালামাল লুট করতে থাকে। এসময় বাধা দিলে ডাকাতদের হামলায় চানু মিয়া, তার স্ত্রী ও ভাই হেলাল আহত হন। পরে ডাকাতরা নগদ অর্থ ও মালামাল লুট করে পালিয়ে যাবার সময় চানু মিয়া ডাক চিৎকার করে এবং মোবাইলে ফোন করে স্বজনদের ও পুলিশে খবর দেয়।

পরে ডাকাতরা পালানোর পথে পুলিশ ও এলাকাবাসী ব্যাড়িকেড দেয়। উপজেলার চাঁদপুর ইউনিয়নের তিলশুনিয়া এলাকা দিয়ে পালানোর রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে ডাকাতদের গাড়ির গতিরোধ করে এবং প্রথমে সাতজন এবং পরে এলাকায় অভিযান চালিয়ে আরো দুইজন ডাকাতকে আটক করে গণপিটুনী দেয় স্থানীয় জনতা। পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ তাদের আটক করে এবং হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়। আটককৃত ডাকাতরা হল সুলতান (২৫), কবির (২৭), আয়োব (৩০), তাজুল ইসলাম (২২), মিলন (২৬), আলী হোসেন (২০), ইব্রাহীম (৩২), শফিকুল ইসলাম বাদল (২৬) ও রফিক (৩৯)।

কাপাসিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক বিজ্ঞাপন চ্যানেলকে জানান, ঘটনার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং এলাকাবাসীর সহায়রতায় ডাকাতদের আটক করা হয়। ডাকাতের কাছ থেকে নগদ ২১ হাজার টাকাসহ ডাকাতির মালামাল ও তাদের ব্যাবহৃত একটি লেগুনা গাড়ি এবং দুটি রামদা উদ্ধার করা হয়েছে।