কাপাসিয়া কলেজে অভিভাবক প্রতিনিধি নির্বাচনে ভোট চলছে

স্টাফ রিপোর্টার: গাজীপুর জেলার প্রাচীনতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কাপাসিয়া ডিগ্রি কলেজে অভিভাবক প্রতিনিধি নির্বাচন হচ্ছে আজ ১৩ এপ্রিল বৃহস্পতিবার। নির্বাচন উপলক্ষে এবার ৩ পদে জয়ী হতে ৫ প্রার্থী তাদের পক্ষে ভোট চেয়ে ঘুরে বেড়িয়েছেন অভিভাবকদের বাড়ি বাড়ি। আজ সকাল সকাল ৮.০০ টায় ভোট শুরু হয়েছে। বিরতিহীনভাবে ভোট চলবে বিকাল ৪.০০ টা পর্যন্ত।

দীর্ঘ কয়েক বছর কলেজের কমিটি গঠনে ভোট না হওয়ায় এ ভোটকে ঘিরে এলাকায় বেশ আমেজ বিরাজ করছে। বিপুল উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্যে  স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোট দিচ্ছেন ভোটাররা।  কলেজ এলাকায় উৎসব মুখর অবস্থা বিরাজ করছে। সকাল আটটা থেকে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ শুরু হয়।

কাপাসিয়া ডিগ্রি কলেজ ১৯৬৫ সালে স্থাপিত হয়। বাংলাভাষার শ্রেষ্ঠ ভাষাবিজ্ঞানী ও বহুভাষাবিদ ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ কলেজটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। গাজীপুর জেলায় প্রথম কলেজ এটি। উচ্চ মাধ্যমিক, স্নাতক(পাস), স্নাতক(সম্মান) কোর্সে প্রায় ৪ হাজার ছাত্র-ছাত্রী এ কলেজে পড়াশোনা করছেন। শিক্ষক রয়েছে ৪৩ জন। কর্মচারী ১৫ জন।

এ নির্বাচনে  কলেজ পরিচালনা পরিষদের অভিভাবক প্রতিনিধি  ৩টি পদের বিপরীতে ৫ জন  প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এবারের নির্বাচনে কোনো মার্কা নেই। যে কারণে নামের আদ্যক্ষর অনুসারে ওই পাঁচ প্রার্থী হচ্ছেন মোঃ আনোয়ার হোসেন(ব্যালট নং-১), আমিনুল হক(ব্যালট নং-২), মোঃ এমদাদুল হক লাল(ব্যালট নং-৩), মোঃ মনির হোসেন(ব্যালট নং-৪) ও মোহাম্মদ আলী(ব্যালট নং-৫)। তাদের মধ্যে আওয়ামী মতাদর্শী  ৪জন ও বিএনপি সমর্থিত ১জন প্রার্থী রয়েছেন।

প্রত্যেক ভোটার ৩ প্রার্থীকে ভোট দিতে পারবেন। নির্বাচনে ৩ হাজার ৪৫ জন অভিভাবক ভোটার তাদের পছন্দের যোগ্য প্রার্থীকে ভোট প্রদান করছেন।

গত ১০ এপ্রিল কলেজের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নির্বাচনে স্বচ্ছতা আনয়নে ভোটারদের ভোটদানের ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয় পত্র(এনআইডি কার্ড)/জন্ম সনদ/ছাত্র-ছাত্রীর ভর্তি সংক্রান্ত কাগজপত্রের মূল বা ফটোকপি সঙ্গে আনতে হবে। অন্যথায় ভোট দিতে পারবেন না।

নির্বাচনে একজন প্রিজাইডিং অফিসার, ৬ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ১২ জন পুলিং অফিসার নিয়োগ করা হয়েছে। এছাড়া আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য মোতায়েন রয়েছে। মিডিয়া কর্মী ও নির্বাচন দেখতে আসা উৎসুক জনতা ভীড়ে প্রাণচঞ্চল হয়ে উঠেছে কলেজ ক্যাম্পাস।

জানতে চাইলে কলেজের অধ্যক্ষ ও প্রিজাইডিং অফিসার মোঃ ছানাউল্লাহ বিজ্ঞাপন চ্যানেলকে বলেন, প্রশাাসন, অভিভাবক ও এলাকাবাসীর সহযোগিতায়  অভিভাবক প্রতিনিধি নির্বাচনটি অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার চেষ্টা করছি। সকলের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।