কালীগঞ্জে ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে প্রশ্নপত্র ফাঁস, আটক ২

গাজীপুর প্রতিনিধি : কালীগঞ্জ উপজেলার নোয়াপাড়া ময়েজউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল ফোনের ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে গণিত পরীক্ষার প্রশ্ন ও উত্তরপত্র ফাঁস করার সময় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে দুই শিক্ষককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। এবং নয় পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়।

শনিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ে কেন্দ্র সচিব মোঃ গোলজার হোসেন বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

আটক দুই শিক্ষক হলেন- চুপাইর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ধর্মীয় শিক্ষক সঞ্জীব কুমার দেবনাথ ও জাঙ্গালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের আইসিটি শিক্ষক নজরুল ইসলাম।

বহিষ্কাকৃত পরীক্ষার্থীরা হলো- চুপাইর উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র প্রণয় দাস, সঞ্জয় শীল ও সজীব দাস । এবং নরুন উচ্চ বিদ্যালয়ের মোঃ আসাদুল ইসলাম, মোঃ সাগর, মোঃ সালমান, রাজু আহমেদ, হাফিজুর রহমান ও চুপাইর উচ্চ বিদ্যালয়ের মাহাবুব আলম।

প্রশ্ন-উত্তরপত্র ফাঁস ও নকলের অভিযোগে পরীক্ষার্থী প্রণয় দাস, সঞ্জয় শীল, সজীব দাসকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয় এবং মোঃ আসাদুল ইসলাম, মোঃ সাগর, মোঃ সালমান, রাজু আহমেদ, হাফিজুর রহমান, মাহাবুব আলমকে গণিত পরীক্ষা থেকে বহিষ্কার করা হয়।

সত্যতা নিশ্চিত করে কালীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সোহাগ হোসেন বিজ্ঞাপন চ্যানেলকে জানান, এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে দায়িত্বে অবহেলার জন্য নোয়াপাড়া ময়েজউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে দুই শিক্ষককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় দেওয়া হয়। এবং তিন পরীক্ষার্থীকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক এবং ছয় পরীক্ষার্থীকে গণিত পরীক্ষা থেকে বহিষ্কার করা হয়।