চীন উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে কাজ করবে

চ্যানেল ডেস্ক : চীন বলছে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে তাদের চিরাচরিত যে বন্ধুত্ব রয়েছে সেটি দুটি দেশের জন্য ‘মূল্যবান সম্পদ’ বলে বিবেচিত হয়।

উত্তর কোরিয়ার ঊধ্বতন এক কর্মকর্তার সঙ্গে দেখা করে তাকে এ কথা বলেছেন চীনের বিশেষ দূত। খবর রয়টার্সের।

তবে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্রের বিষয়ে এ সাক্ষাতে কোনো কথা হওয়ার বিষয়ে কোনো তথ্য নেই বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

সম্প্রতি শেষ হওয়া চীনের কমিউনিস্ট পার্টি সম্মেলনের ফলাফল নিয়ে আলাপ করতে বর্তমানে পিয়ংইয়ংয়ে রয়েছেন চীনের ক্ষমতাসীন দলটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক বিভাগরে প্রধান সং তাও।

সাক্ষাতের বিষয়ে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দুই দেশের জনগণের ভালোর জন্য এবং দুই দল ও দুই দেশের সম্পর্ক আরও উন্নয়নের জন্য দুই পক্ষকে এক হয়ে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে।

শুক্রবার উত্তর কোরিয়া পৌঁছেছেন সং। তবে সেখানে তিনি কতদিন থাকবেন সেটি পরিষ্কার নয়।

উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র ও মিসাইল পরীক্ষা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও মিত্রদের সঙ্গে দেশটির যে চলমান উত্তেজনা নিরসনে বারবার কূটনৈতিক তৎপরতার ওপর জোর দিয়ে গেছে চীন। তবে সাম্প্রতিক সময়ে কেবল উচ্চপর্যায়েই সম্পর্ক বজার রেখে চলছিল চীন।

এরআগে সর্বশেষ গতবছরের ফেব্রুয়ারিতে উত্তর কোরিয়া সফর করেছিলেন চীনের কোনো বিশেষ দূত।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বেইজিং সফরের মাত্র কয়েকদিনের মধ্যেই উত্তর কোরিয়া সফরে গেলেন সং। ট্রাম্প তার সফরে উত্তর কোরিয়া ইস্যুতে চীনের কাছ থেকে কঠোর পদক্ষেপ আশা করেছেন।

এই চীনের সঙ্গেই উত্তর কোরিয়া তাদের ৯০ শতাংশ বাণিজ্য করে থাকে।

চীনের রাষ্ট্র পরিচালিত প্রভাবশালী গণমাধ্যম গ্লোবাল টাইমসের এক সম্পাদকীয়তে বলা হয়েছে, সংয়ের এ সফর থেকে খুব বেশি প্রত্যাশা করা উচিৎ হবে না। তার সফরের মূল উদ্দেশ্য হলো দলের সম্মেলনের বিষয়ে জানানো।

সং কোনো জাদুকর নন, বলেও উল্লেখ করা হয়েছে সম্পাদকীয়তে।

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে সংয়ের দেখা হবে কি না বিষয়টি পরিষ্কার নয়।