জোহরা তাজউদ্দীনের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

স্টাফ রিপোর্টার: বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য, মহিসয়ী নারী সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীনের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে বুধবার(২০ ডিসেম্বর) গাজীপুরের কাপাসিয়ার বিভিন্ন ইউনিয়নে মিলাদ মাহফিল এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে মিলাদ ও দোয়ার আয়োজন করা হয়।

কর্মসূচির মধ্যে ছিল কাপাসিয়া দলীয় কার্যালয়ে কোরানখানি, ফাতেহা পাঠ ও আলোচনা সভা।

এ উপলক্ষে আজ কাপাসিয়া উপজেলা কার্যালয়ে বিকালে উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মুহম্মদ শহীদুল্লাহর সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমানের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগসহ সভাপতি আবু আক্তার হোসেন বুলু, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রেজাউর রহমান লস্কর মিঠু, আসাদুজ্জামান আসাদ, মাহবুবুল আলম সেলিম, সাখাওয়াত হোসেন প্রধান চেয়ারম্যান, মজিবুর রহমান, আ. রউফ দরজী, রাজীব ঘোষ, আ. কাইয়ুম ভূইয়া প্রমুখ।

টোক ইউনিয়ন যুবলীগের উদ্যোগে সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীনের মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া দলের পক্ষ থেকে উপজেলার  অন্যান্য ইউনিয়নে একই রকম কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়।

২০১৩ সালের ২০ ডিসেম্বর রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীন মুজিবনগর সরকারের প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদের স্ত্রী। ১৯৭৫-এর ১৫ আগস্ট পরবর্তী আওয়ামী লীগের দুঃসময়ে দলের হাল ধরায় তাঁকে দলের দুর্দিনের কান্ডারি বলা হয়।

জোহরা তাজউদ্দীনের চার ছেলেমেয়ের মধ্যে সিমিন হোসেন রিমি বর্তমান সাংসদ এবং আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য। তাঁর ছেলে তানজিম আহমদ সোহেল তাজ স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ছিলেন।

সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীন ১৯৩২ সালের ২৪ ডিসেম্বর ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগে পড়াশোনা করেন। ষাটের দশকে আইয়ুববিরোধী আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন তিনি।