টঙ্গীতে এক স্কুলছাত্রকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

রেজাউল সরকার (আঁধার) : গাজীপুর  মহানগরের টঙ্গীতে এক স্কুলছাত্রকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে টঙ্গীর বাতান খাঁ পাড়ায় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
নিহতের নাম ফেরদৌস আহমেদ (১৪)। তার গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের ত্রিশাল থানার ওলহরি গ্রামে। টঙ্গীর সাতাশ এলাকার সিরাজদৌলা পাঠান সাহেবের বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে ভাড়া থাকতো।
ফেরদৌসে টঙ্গীর সাতাইশ হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণীর ছাত্র ছিল।
ফেরদৌসের বাবা আসরাফুল আলম জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার টঙ্গীর বাতান খাঁ পাড়া সড়কে আয়োজিত এক বৈশাখী অনুষ্ঠানে গিয়ে তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে এলাকার ছেলেদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় ফেরদৌসের। রাত ৯টার দিকে সে বাসায় ফেরার সময়ে এলাকার ছেলেরা তার পথ আটকে তাকে ছুরিকাহত করে। গুরুতর আহতাবস্থায় ফেরদৌসকে প্রথমে টঙ্গীর ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ও পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়। তবে ঢামেকের কর্তব্যরত চিকিৎসক রাত ১২টায় তাকে মৃত ঘোষণা করেন। দুই ভাইয়ের মধ্যে সে বড় ছিল বলেও জানান তার বাবা আসরাফুল আলম।
ফেরদৌসের কয়েকজন স্বজনের দাবি, ইমরান ও ইমদাদুলসহ চার থেকে পাঁচজন যুবক ফেরদৌসকে ছুরিকাঘাতে করে। কিন্তু কী কারণে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়েছে, তা তাঁরা জানাতে পারেননি।
ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া সত্যতা নিশ্চিত করে বিজ্ঞাপন চ্যানেলকে জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেকের মর্গে রাখা হয়েছে।