টঙ্গীতে ৭০ভরি স্বর্ণালঙ্কার এবং নগদ অর্থ লুট : আহত-৩

রেজাউল সরকার (আঁধার) :গাজীপুর  মহানগরের টঙ্গীতে অস্ত্রেরমুখে বাড়ির লোকজনের মুখ, হাত ও পা বেঁধে ৭০ভরি স্বর্ণালঙ্কার এবং সাড়ে ৫লাখ টাকা ও লুটে নিয়ে গেছে ডাকাতরা। এসময় ডাকাতদের হামলায় আহত হয়েছেন তিনজন ।
রোববার সন্ধ্যা পৌণে ৬টার দিকে হোসেন মার্কেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রাসেল শেখ।
আহতরা হলেন- হোসেন মার্কেট এলাকার বাসিন্দা মো. মনিরুজ্জামান ভ’ইয়ার ছেলে নাবিল (১৭), মেয়ে মাহদিয়া (১০) ও কাজের বুয়া নার্গিস (১৫)।
বাড়ির মালিক মো. মনিরুজ্জামান ভূইয়া জানান, রোববার সন্ধ্যা পৌণে ৬টার দিকে এক ব্যক্তি তার বড়ভাই মোয়াজ্জেম হোসেন ভূইয়ার খোঁজ জানতে কৌশলে বাসার ভেতরে ঢুকে। এসময় বাইরে অপেক্ষায় থাকা আরো ১৪/১৫জন সশস্ত্র ডাকাত বাসায় ঢুকে যায়। পরে বাড়ির লোকজনকে অস্ত্রের মুখে হাত-পা ও মুখ বেঁধে ও মারধর করে একটি ঘরের ভেতর আটকে রাখে।
এসময় আমার ছেলে নাবিল ও ভাই মোয়াজ্জেম হোসেন বাসায় ঢুকলে তাদেরও মারধর করে আটকে রাখে ডাকাতরা।
পরে আলমারীর তালা ভেঙ্গে আমার ঘর থেকে সাড়ে ৩লাখ টাকা ও ৪৫ভরি স্বর্ণালঙ্কার এবং ভাই মোয়াজ্জেম হোসেনের বাসার আলমারীর তালা ভেঙ্গে ২লাখ টাকা এবং ২৫ভরি স্বর্ণালঙ্কার লুটে নিয়ে পালিয়ে যায়। এক পর্যায়ে মুখের বাঁধন খুলে তার মেয়ে ডাকচিৎকার শুরু করলে প্রতিবেশিরা গিয়ে তাদের উদ্ধার করে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে।
টঙ্গী থানার ওসি মো. ফিরোজ তালুকদার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সাংবাদিকদের বলেন, পূর্ব শত্রুতার জেরে ওই হামলা ও সোনা লুটের ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। শনিবার ডলার খান নামের এক ব্যক্তি মোয়াজ্জেম হোসেনের সিঙ্গাপুর প্রবাসী মফিজ উদ্দিনকে মোবাইল ফোনে দেশে তার ভাইদের দেখে নেয়ার হুমকি দেয়। এর একদিন পরই ওই ঘটনা ঘটলো। স্থানীয় রেজাউল করিমের কাছ থেকে কিছু জমি কেনেন মনিরুল ভূইয়া ও তার ভায়েরা। কিন্তু কেনা জমির দখল নিয়ে রেজাউলের সাথে মনিরুলদের বিরোধ চলছিল। আর ডলার খান হলো রেজাউলের আত্মীয়।