ড. হোসেন জিল্লুর রহমানের বক্তব্যে পবিপ্রবিতে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ

স্টাফ রিপোর্টার: পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পবিপ্রবি) শিক্ষার মান নিয়ে  ড. হোসেন জিল্লুর রহমানের অবমানাকর বক্তব্যের প্রতিবাদে মানববন্ধনের করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র , শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।

গতকাল পবিপ্রবিকে নিয়ে ড. হোসেন জিল্লুর রহমান এর বক্তব্যের প্রতিবাদ ও নিন্দা জানান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক ও পবিপ্রবি গ্রাজুয়েটদের সংগঠন “WE are PSTUians” এর কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য মোঃ আমিনুল ইসলাম ।

এর পরেই আজ সকাল থেকেই পবিপ্রবি বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ক্যাম্পাসে মানববন্ধন ছাত্র, শিক্ষক,ও কর্মচারীবৃন্দ মিলে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ করেন ।

%e0%a6%aa%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a4%e0%a6%bf%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%a6-%e0%a6%93-%e0%a6%ac%e0%a6%bf

সাবেক উপাচার্য সৈয়দ সাখাওয়াত হোসেন এক বিবৃতিতে জানান, “ওর বিষদাঁত ভেংগে দিতে হবে। ওরাই স্বাধীনতার শত্রু। স্বাধীনতা যুদ্ধে তাঁর কি ভুমিকা ছিল জিজ্ঞেস করা হোক। পবিপ্রবি’র গ্রাজুয়েটদের সাথে তাঁর নিজের মান যাচাই করা হোক। ইতিমধ্যে প্রমানিত হয়েছে অনেক প্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রাজুয়েটদের সাথে পাল্লা দিয়ে পবিপ্রবি’র গ্রাজুয়েটরা আজ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকুরী করছে। শুধু তাই নয় পবিপ্রবি গ্রাজুয়েশন নিয়ে বাকৃবিসহ অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ে এমএস কোর্সে ভর্তি হয়ে তাদের অনেকেই সর্বোত্তম রেজাল্ট করে বের হচ্ছে। আমি মনে করি হোসেন সাবের বিরুদ্ধে পবিপ্রবি’র পক্ষথেকে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হোক। ঐ সব ব্যক্তিরা ঢাকায় বসে তথ্য সংগ্রহ করে সব কিছুর বিষয়ে ঢালাও মন্তব্য করে থাকে। তিনি তো তার জীবনে একবারও পবিপ্রবি ক্যাম্পাসে যাননি। ঢাকায় প্রতিষ্ঠিত তথ্য কারখানা থেকে সংগ্রহীত বানোয়াট তথ্য দিয়ে মন্তব্য করা এদের অভ্যাসে পরিনত হয়েছে। অবিলম্বে জিল্লুর সাহেবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবার দাবী জানাচ্ছি। তাকে প্রকাশ্যে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।”

বিক্ষোভের সময় শিক্ষার্থীরা ক্ষুদ্ধ হয়ে তার কুশপুত্তলিকায় আগুন ধরিয়ে দেয় ।