দ্বিতীয় বারের মতো রাষ্ট্রপতি হলেন আবদুল হামিদ

স্টাফ রিপোর্টার: বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ২১তম রাষ্ট্রপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন মো. আবদুল হামিদ। দ্বিতীয় বারের মতো তিনি রাষ্ট্রপতি হলেন। আগামী পাঁচ বছর অর্থাৎ পরবর্তী সরকার আমলেও রাষ্ট্রপ্রধানের দায়িত্বে অধিষ্ঠিত থাকবেন আব্দুল হামিদ। মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাইয়ের পর আজ প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা একমাত্র প্রার্থী হিসেবে আবদুল হামিদকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করেন।

এর আগে সোমবার রাষ্ট্রপতি পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন আবদুল হামিদ। আজ সিইসি বলেন, একমাত্র প্রার্থী হওয়ায় আবদুল হামিদকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় দেশের ২১তম রাষ্ট্রপতি হিসেবে নির্বাচিত ঘোষণা করছি।

সোমবার সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দল সিইসি কে এম নূরুল হুদার কাছে আবদুল হামিদের তিনটি মনোনয়নপত্র জমা দেন। রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় ছিল সোমবার সকাল ১০ টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল। এছাড়া ১৮ ফেব্রুয়ারি ভোটগ্রহণ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু প্রার্থী সংখ্যা একজন হওয়ায় আর ভোটগ্রহণের প্রয়োজন হলো না।

এর আগে ২০১৩ সালে ২২ ফেব্রুয়ারি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় দেশের ২০তম রাষ্ট্রপতি হিসেবে নির্বাচিত হন মো. আবদুল হামিদ। পরে ২৪ এপ্রিল রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ নেন। সংবিধান অনুযায়ী, রাষ্ট্রপতির মেয়াদপূর্তির তারিখের আগের নব্বই থেকে ষাট দিনের মধ্যে নির্বাচন করতে হয়। ফলে আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারির মধ্যে এ নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

গত ৩১ জানুয়ারি গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডের সভায় আবদুল হামিদকে দ্বিতীয় দফা রাষ্ট্রপতি হিসেবে মনোনয়ন দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। এরপর গত শুক্রবার জাতীয় সংসদের প্রধান হুইপ আ স ম ফিরোজ আবদুল হামিদের পক্ষে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন এবং রবিবার রাষ্ট্রপতি ওই মনোনয়নপত্রে সই করেন। সোমবার তা নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া হয়। আজ তাকে নির্বাচিত ঘোষণা করা হলো।