প্রত্যেক নারী কনস্টবলকে মোটরসাইকেল প্রদান করা হোক

মোঃ সাইফুল ইসলাম মোল্লা: ঢাকা শহরে দায়িত্ব পালন করা এক নারী কনস্টবলের সাইকেলে করে কর্মস্থলে যাওয়ার দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে।গায়ে পুলিশের উর্দি, মাথায় হেলম্যাট, পিঠে ব্যাগ নিয়ে সাইকেল চালিয়ে যাচ্ছেন এক নারী—রাজধানীর ব্যস্ত রাস্তায় এমন দৃশ্য সচরাচর দেখা যায় না। তাই দেখামাত্রই আরেক পুলিশ কর্মকর্তা অনুমতি নিয়ে দৃশ্যটি ক্যামেরাবন্দি করলেন। তারপর তুলে দিলেন ফেসবুকে। দ্রুতই তা ছড়িয়ে পড়ে লাখ লাখ মানুষের কাছে।

লুৎফা জানান, পুলিশে যোগ দিয়েছেন দেশ ও মানুষকে সেবা দেওয়ার জন্য। তাই প্রতিদিন সকালে কারো ওপর নির্ভরশীল না হয়ে রাজারবাগ থেকে সাইকেলে করে তেজগাঁওয়ে কর্মস্থলে যান। এতে যানজট এড়িয়ে সময়মতো অফিসে পৌঁছা যায়।
তিনি বলেন, “দরিদ্র পরিবারে জন্ম নিলেও শত বাধা প্রতিকূলতার মধ্যেও থেমে থাকিনি। ছোটবেলা থেকেই নিজের পায়ে দাঁড়াতে চেষ্টা করেছি। তাই লেখাপড়া শিখে বেকার থাকতে চাইনি। লেখাপড়া চালিয়ে নিতে টিউশনিও করেছি। এখন আমি অনেকটাই সফল।”

 ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) বিপ্লব কুমার সরকারের ভাষায়, “পুলিশে এর আগে কোনো নারী সদস্য এভাবে সাইকেল চালিয়ে অফিস আসা কিংবা দায়িত্ব পালন করেছে কি না তা আমার চোখে পড়েনি। এটা অবশ্যই সাহসী পদক্ষেপ লুৎফার। এই সাহসী চিন্তাভাবনা নারী পুলিশের জন্যও একটি পরিবর্তন।”

ইতোমধ্যে পাঠকদের কাছে স্পষ্ট হয়ে গেছে, নানা সীমাবদ্ধতা ও প্রতিকূলতার মাঝেও দেশের নারী কনস্টবলরা পুলিশিং সেবায় নিজেদের নিয়োজিত রেখেছেন।গভীর রাত, ভোর, দুপুর, হরতাল, বন্যা সর্ব অবস্থায় তাদেরকে ডিউটি করতে হয়।কিন্তু সাইকেল চড়ে তাদের যাতায়াত কতটুকু নিরাপদ?

আমরা বিশ্বাস করি, নারী কনস্টবলদেরকে মোটরসাইকেল প্রদান করা হলে তাদের যাতায়াত নিরাপদ হবে। একই সঙ্গে জনগণকে আন্তরিক সেবাদানে তারা আরও বেশি উদ্ধুদ্ধ হবেন। আমরা আশা করি, বিষয়টা সরকার ভেবে দেখবেন।

মোঃ সাইফুল ইসলাম মোল্লা, এডিটর-ইন-চিফ, বিজ্ঞাপন চ্যানেল