নিউইয়র্কে বাংলাদেশি নারী হত্যা, গ্রেফতার ১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের কুইন্সে গত বুধবার ছুরিকাঘাতে নাজমা খানম এক বাংলাদেশি নারী হত্যার ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে দেশটির পুলিশ। টাইম.কমের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

নিউইয়র্ক পুলিশ এ হত্যাকাণ্ডকে হেইট ক্রাইম বা ঘৃণাপ্রসূত অপরাধ বলে মনে করছে।

গ্রেফতার ব্যক্তির নাম ইয়োনতান গ্যালভেজ-মেরিন। তাকে গ্রেফতারের বিষয়টি পুলিশ রোববার জানালেও কবে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে সে বিষয়ে টাইমের প্রতিবেদনে কিছু বলা হয়নি।

গেল বুধবার স্থানীয় সময় রাত ৯টায় কুইন্সের ১৬০, নরমেল রোডের কাছে নাজমা খানমকে (৬০) বুকে ছুরিকাঘাত করা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরে হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

অভিযোগ রয়েছে, মেরিন সেদিন নাজমার কাছে টাকা চেয়েছিলেন। নাজমা টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে মেরিন তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যান।

নাজমা হত্যাকাণ্ডের কয়েকদিন আগেই নিউইয়র্কে খুন হয়েছেন আরো দুই বাংলাদেশি; যাদের মধ্যে একজন সেখানকার একটি মসজিদের ইমাম ছিলেন।

নাজমার দেবর এসকান্দার আজম খান জানান, ১৯৭২ সালে শরীয়তপুর সরকারি কলেজের প্রভাষক শামসুল আলম খানের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। এই দম্পতির দুই ছেলে ও এক মেয়ে বড় ছেলে নাজমুল আলম খান লিটু ও মেয়ে তৃণা খানম ঢাকায় থাকেন। ছোট ছেলে শুভকে নিয়ে ২০০৮ সাল থেকে আমেরিকায় বাস করছিলেন এই দম্পতি। ছোট ছেলের বিয়ের উদ্দেশে দুই মাস পরই দেশে ফেরার কথা ছিল পরিবারটির।