বঙ্গবন্ধু বাংলার জর্জ ওয়াশিংটন

স্টাফ রিপোর্টার : ইউনেস্কোর বিশেষ দূত ও যুক্তরাষ্ট্রের বিশিষ্ট পানি-বিজ্ঞানী গিল গারসেটি বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হচ্ছেন বাংলার জর্জ ওয়াশিংটন।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতির জনক ও প্রথম রাষ্ট্রপতি জর্জ ওয়াশিংটনের সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর তুলনা করে গারসেটি বলেন, বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটা দেশ ও জাতির জন্য যা করছেন তা পৃথিবীতে বিরল।

মার্কিন সরকারের দু’বারের নির্বাচিত ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি গিল গারসেটি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জীবন ইতিহাস ও আদর্শ সকলের কাছে অনুকরণীয়।

ইউনেস্কোর বিশেষ দূত হিসেবে সম্প্রতি বাংলাদেশ সফর শেষে যুক্তরাষ্ট্র ফিরে স্থানীয় সময় শনিবার সকালে লস অ্যাঞ্জেলেসে নিজ বাসভবনে এই প্রতিবেদককে দেয়া এক সাক্ষাত্কারে তিনি এসব মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশ সফরে গারসেটি ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর বাড়ি, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারসহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান পরিদর্শন করেন।

লস অ্যাঞ্জেলেসের দু’বারের নির্বাচিত মেয়র এরিক গারসেটির বাবা গিল গারসেটি বাংলাদেশেকে একটি সম্ভাবনাময় দেশ হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, ক্যালিফোর্নিয়ার চেয়ে আয়তনে ছোট হলেও বাংলাদেশ একটি জনবহুল দেশ। এরপরও দেশটি আইন-শৃঙ্খলা, অর্থনীতি ও প্রযুক্তিসহ বেশ কিছু ক্ষেত্রে অগ্রগতি অর্জন করেছে।

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার ট্রাফিক ব্যবস্থার আরও আধুনিকায়ন ও যান চালকদের আইনের প্রতি আরও শ্রদ্ধাশীল হওয়ার প্রয়োজন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ইউনেস্কোর বিশেষ দূত হিসেবে বাংলাদেশ সফরকালীন সময়ে তিনি ঢাকায় পানি বিষয়ক কয়েকটি সেমিনারে অংশ নেন।

বাংলাদেশে পানির সমস্যা ও সম্ভাবনা সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাংলাদেশে প্রচুর পানির উৎস থাকার পরও ভূগর্ভস্থ পানির অপরিকল্পিত ব্যবহার রোধ প্রয়োজন।

gilbertপানির স্তর পর্যবেক্ষণে সরকারকে এখনই বিশেষ পদক্ষেপ নেয়ার পরামর্শ দেন তিনি।

আর্সেনিকমুক্ত বিশুদ্ধ পানি ব্যবস্থাপনায় সরকারের প্রশংসা করে তিনি বলেন, অসংখ্য নদী-নালা, খাল-বিল ও বৃষ্টিপাতের দেশ বাংলাদেশে পানির উৎস অত্যন্ত সহজলভ্য। পৃথিবীর অন্যান্য দেশে পানির উৎস সহজলভ্য নয়। এ দিক দিয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে। এ সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে হবে।

পানি দূষণ রোধে এখনই ব্যবস্থা নেয়া উচিৎ বলেও মনে করেন এই পানি বিজ্ঞানী।

সুষ্ঠু পরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের মাধ্যমে পানির নিরাপদ ব্যবহার নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্টদের মনযোগী হওয়ার পরামর্শ দেন গিল।

সফরে বাংলাদেশিদের আতিথেয়তার ভূয়সী প্রশংসা করে তাদের জন্য শুভ কামনা করেন ইউনেস্কোর এই বিশেষ দূত।