ভালুকায় দুই সাব-রেজিস্ট্রারের ঝগড়া থামাতে পুলিশ!

ভালুকা (ময়মনসিংহ) থেকে তমাল কান্তি সরকার: ময়মনসিংহের ভালুকায় নতুন সাব রেজিস্ট্রারের যোগদান নিয়ে সোমবার সকালে ঢাকার সাভার থেকে আসা জাহাঙ্গীর আলম নামের নতুন সাব রেজিস্ট্রার হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করে জোরপূর্বক ভালুকায় যোগদানের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। যোগদান করতে এসে জাহাঙ্গীর আলম বর্তমানে কর্তব্যরত সাব রেজিস্ট্রার মুক্তিযোদ্ধা শাহ জামাল মোল্লার সাথে উত্তপ্ত বাক বিতন্ডা জড়িয়ে পরেন। পরে ভালুকা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও মডেল থানা পুলিশের হস্তক্ষেপ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

জানা যায়,ময়মনসিংহের ভালুকায় কর্মরত সাব রেজিস্ট্রার মুক্তিযোদ্ধা শাহ জামাল মোলা গত ১৬ সেপ্টেম্বর পি আরএল যাওয়ার কথা ছিল। ময়মনসিংহের ভালুকার সাব রেজিস্ট্রার শাহ জামাল মোলা মজিব নগর কর্মকর্তা হিসাবে অবসর উত্তর ছুটির মেয়াদ ৬০ বছর থেকে বৃদ্ধি করে ৬১ বছর কারার জন্য ৩ জুলাই হাইকোর্টে রিট করেন। রিটের প্রেক্ষিতে ৮ আগস্ট বিচারপতি এম,এস ছালাম মাসুদ চৌধুরী এবং বিচারপতি একেএম জহিরুল হক সমন্বিত বেঞ্চ তাঁর সরকারী চাকুরি অবসরের বয়স সীমা ৬০ বছর থেকে ৬১ বছর করার নির্দেশ দেন। গত ১১ সেপ্টেম্বর সিনিয়র সহকারী সচিব আনোয়ারুল হক স্বারিত আদেশে ২৭ জন সাব-রেজিস্ট্রারকে বিভিন্ন সাব রেজিস্ট্রি অফিসে বদলী করা হয়। ওই আদেশে ঢাকার সাভারের সাব-রেজিস্ট্রার মোঃজাহাঙ্গীর আলমকে ভালুকা উপজেলা সাব রেজিস্ট্রি অফিসে বদলী করা হয়।

ভালুকা সাব রেজিস্ট্রার শাহ জামাল মোল্লার পক্ষে হাইকোর্টের আদেশের কোন ব্যবস্থা না নিয়ে তাঁকে এক বছরের জন্য গত ১৪ সেপ্টেম্বর পিআরএল এ পাঠানোর নির্দেশ দেন। হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে পিআরএল এর নির্দেশ দেয়ায় শাহ জামাল মোল্লা পূনঃরায় সাভারের সাব-রেজিস্ট্রার জাহাঙ্গীরসহ ১১ জনকে বিবাদী করে রিট করলে হাইকোর্টের বিচারপতি এমদাদুল হক ও বিশাম দেব চক্রবর্তীর অবকাশ কালীন সমন্বিত বেঞ্চ মোঃ জাহাঙ্গীর আলমকে ৬ মাসের জন্য সাভার সাব রেজিস্ট্রি অফিসে পূনঃবহাল ও একই সাথে ভালুকার বর্তমানে কর্মরত সাব রেজিস্ট্রার শাহ জামাল মোলাকে ভালুকায় ৬ মাসের জন্য মেয়াদ বৃদ্ধি করেন।

হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করে সাভারের সাব রেজিস্ট্রার জাহাঙ্গীর আলম বে-আইনীভাবে জোরপূর্বক ভালুকা অফিসে এসে সোমবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকালে যোগদান করতে চাইলে বর্তমানে কর্তব্যরত সাব রেজিস্ট্রার মুক্তিযোদ্ধা শাহ জামাল মোলার সাথে উত্তপ্ত বাক-বিতন্ডা হয়। পরিস্থিতি পর্যায়ক্রমে ভয়াবহ রূপ ধারণ করলে। এ ঘটনার খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মোশারফ হোসেন খান ও ভালুকা মডেল থানার অফিসারর্স ইনচার্জ মামুন আর রশিদ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

সাভারের সাব রেজিস্ট্রার জাহাঙ্গীর আলম জানান,বদলীর আদেশের প্রেক্ষিতে এ অফিসে যোগদান করতে এসেছি।

ভালুকায় কর্মরত সাব রেজিস্ট্রার শাহ জামাল মোল্লা জানান,হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে জাহাঙ্গীর আলম এ অফিসে জোরপূর্বক যোগদান করতে চেয়ে ছিল।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মোশারফ হোসেন খান বিজ্ঞাপন চ্যানেলকে জানান, মহামান্য হাইকোর্ট শাহ জামাল মোলার চাকুরির মেয়াদ এক বছর বৃদ্ধি করেছেন এবং জাহাঙ্গীর আলমকে ৬ মাসের জন্য সাভারে পূনঃবহাল রাখা হয়েছে। কাজেই এখানে এসে তিনি যোগদানের প্রশ্নই আসে না।