মায়ানমারে মুসলিম নির্যাতনে বিশ্ব মানবাধিকারের গভীর উদ্বেগ

মোঃ রুহুল আমীন বিএসসি: বাংলাদেশের প্রতিবেশী রাষ্ট্র মিয়ানমারে মুসলিম নির্যাতনের প্রতিবাদ ও গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছে বিশ্ব মানবাধিকার সংগঠন ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইটস ডিপার্টমেন্ট।

বিগত অক্টোবরের  ৯ তারিখ থেকে অদ্যাবধি মিয়ানমার সেনাবাহিনী রাখাইন প্রদেশে বসবাসরত নিরীহ মুসলিমদের উপর অমানবিক নিপীড়ন নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে। এতে ছোট বড় নারী , শিশু কেউ রেহাই পাচ্ছে না।

ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইটস ডিপার্টমেন্ট সূত্রে জানা যায়, বার্মার সেনাবাহিনী বহু নারীকে ধর্ষন করছে। প্রায় ৪০০ মানুষকে পুড়িয়ে ও গলাকেটে হত্যা করছে। প্রায় ৪,০০০ বাড়ি ঘর জ্বালিয়ে দিয়েছে। তাদের সহায় সম্পদ সব কিছু ধ্বংস করে ফেলেছে। এতে প্রায় ৩৫,০০০ মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছে।

মানবাধিকার সংগঠনগুলোর পাশাপাশি সারা বিশ্বের শান্তি প্রিয় মানুষ এহেন জঘন্য কর্মকান্ডকে হৃদয় থেকে ঘৃণা করে ও প্রতিবাদ জানায়। এই মুহুর্তে হামলা বন্ধ করে মায়ানমার কর্তৃপক্ষকে সভ্যতার পরিচয় দিয়ে নোবেল শান্তি পুরস্কারের সম্মান অক্ষুন্ন রাখার আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইটস ডিপার্টমেন্ট এর চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম মোল্লা বলেন, বিভিন্ন মিডিয়ায় মায়ানমারে মুসলিম নির্যাতনের যে ধরনের নির্যাতনের চিত্র ফুটে উঠছে তা অত্যন্ত হৃদয় বিদারক। সেখানকার বাস্তব চিত্র আরও ভয়াবহ। পাড়ায় পাড়ায় তল্লাশি চালিয়ে টার্গেট ভিত্তিক গুলি চালিয়ে তাদের মৃত দেহ পথে ,খালে ও নদীতে ফেলে দেওয়া হচ্ছে। হেলিকপটার থেকে গুলি করা হচ্ছে। কোন সাংবাদিককে সেখানে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না। তাদের এ ধরনের জঘন্য কার্যক্রম বিশ্ব বিবেককে প্রশ্নবিদ্ধ করছে। এ মুহুর্তে হামলা বন্ধ না হলে বৌদ্ধ অধ্যুষিত মায়ানমার অন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের নিকট প্রশ্ন বিদ্ধ হয়ে যাবে এবং বিশ্বে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার জন্য তাদেরকেই দায়ি করবে বিশ্ব।