যৌনকর্মীর মামলায় আ.লীগ নেতা কারাগারে

স্টাফ রিপোর্টার : নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে এক যৌনকর্মীর দায়ের করা মামলায় জামিন না মঞ্জুর করে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান এবং গোয়ালন্দ পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মাহাবুব রাব্বানীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার ওই মামলায় জামিনের আবেদন করলে রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক তা নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া যৌনপল্লীর এক যৌনকর্মী নিজেকে গোলাম মাহাবুব রাব্বানীর স্ত্রী এবং তাদের ৯ বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে বলে দাবি করে বিগত বছরের ২৫ সেপ্টেম্বর রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা দায়ের করেন।

ওই মামলায় রাব্বানী হাইকোর্ট থেকে ছয় মাসের জামিন গ্রহণ করেন। জামিনের মেয়াদ শেষে গতকাল তিনি রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে পুনঃজামিনের আবেদন করেন। আদালত তার আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এ বিষয়ে গোলাম মাহাবুব রাব্বানীর স্ত্রী গোয়ালন্দ পৌরসভার প্যানেল মেয়র আফরোজা রাব্বানী বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে তার স্বামীর সঙ্গে দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম মন্ডলের বিরোধ চলে আসছিল। এর অংশ হিসেবেই দৌলতদিয়া যৌনপল্লীর একজন যৌনকর্মীকে দিয়ে আদালতে ওই মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এ সময় তিনি দাবি করেন রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বসবর্তী হয়ে একটি মহল তার স্বামীকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে।