শিশু মুক্তিযোদ্ধাদের বয়সসীমা আরও ছয় মাস কমলো

স্টাফ রিপোর্টার: মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার বয়সসীমা আরও ছয় মাস কমানো হলো। অর্থাৎ সাড়ে ১২ বছরের গেজেটভুক্ত সবাই মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পাবেন।

মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বিবেচনার জন্য ন্যূনতম বয়স পুনর্নির্ধারণ করে বুধবার পরিপত্র জারি করেছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। ওই পরিপত্রে বলা হয়েছে, ১৯৭১ সালের ৩০ নভেম্বর যেসব মুক্তিযোদ্ধার বয়স ন্যূনতম ১২ বছর ৬ মাস ছিল, তাঁদের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বিবেচনা করা হবে।

এর আগে গত বছরের ১৯ জুন জারি করা পরিপত্র অনুযায়ী মুক্তিযোদ্ধা বিবেচনার ন্যূনতম বয়স ছিল ১৩ বছর। মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার এই বয়সসীমা দীর্ঘদিন ধরেই বিতর্ক চলছে।

জামুকার ৫০তম সভার কার্যবিবরণীতে মুক্তিযোদ্ধাদের বয়স ছয় মাস প্রমার্জনের বিষয়ে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেওয়া হয়। এরপর সিদ্ধান্ত কার্যকরের ব্যাপারে মতামত জানতে তা প্রস্তাব আকারে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক সাংবাদিকদের বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসনের পরই বিষয়টি চূড়ান্ত করা হয়েছে।

জামুকার কার্যবিবরণীতে বয়স কমানোর যুক্তি হিসেবে বলা হয়েছে, মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য নির্ধারিত বয়স ১৩ বছর ধার্য করার কারণে অনেকে সরকারি প্রাপ্য সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছেন না। এমন অনেকে আবেদন করেছেন। তাই ‘কেস টু কেস’ বিবেচনা না করে সবার জন্যই এ প্রমার্জনের (বয়সসীমা কমানো) সুযোগ রাখা হবে। মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের চাকরি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি, সম্মানী ভাতা ও সুযোগ-সুবিধার বিষয়টি বিবেচনা করে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, এ নিয়ে গত ৪৬ বছরে মুক্তিযোদ্ধাদের বয়স, সংজ্ঞা ও মানদণ্ড ১০ বার পাল্টানো হলো।