শুধু আইন প্রয়োগ করে দেশ থেকে মাদক রোধ করা সম্ভব নয় : আইনমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার: আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, ‘শুধু আইন প্রয়োগ করে দেশ থেকে মাদক রোধ করা সম্ভব নয়। ভালোবাসা দিয়ে মাদক ও জঙ্গিবাদের মতো বিপথগামীদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আনা সম্ভব।’

তিনি বলেন, ‘মাদক হয়তো অর্থ দেয়, কিন্তু শান্তি দেয় না। যারা জঙ্গিবাদ ও মাদক ছেড়ে সুস্থ জীবনে ফিরে আসবেন- আমরা তাদের বুকে জড়িয়ে নেব।’

এ সময় তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, ‘আর যারা ফিরবেন না তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

শুক্রবার বিকালে আখাউড়া উপজেলার সীমান্তবর্তী উত্তর ইউনিয়নের আজমপুর রেলওয়ে স্টেশন মসজিদ মাঠে আয়োজিত মাদক ও জঙ্গিবাদবিরোধী সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় ১৫৬ মাদকবিক্রেতা, বহনকারী ও মাদকসেবী আত্মসমর্পণ করেন। আত্মসমর্পণকারীদের মধ্যে ১৭ জন মহিলা মাদক বিক্রেতাও রয়েছেন। প্রধান অতিথি আইনমন্ত্রী তাদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘দেশ থেকে একক কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের পক্ষে মাদক রোধ করা সম্ভব নয়। মাদক একটি জাতীয় সমস্যা। এটি সমাধানে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। তাছাড়া সরকার জঙ্গিবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি বিশ্বাস করে। আইনের পাশাপাশি সামাজিক সচেতনতা জরুরি হয়ে পড়েছে। সমাজ সচেতনতাই পারে যুব সমাজকে মাদকের করাল গ্রাস থেকে বাঁচাতে।’

তিনি বলেন, ‘ভারত সরকারের সঙ্গে একাধিকবার কথা বলেছি- ভারত সীমান্তের নো-ম্যান্সল্যান্ডে ইয়াবা, ফেনসিডিলের ফ্যাক্টরিগুলো বন্ধ করে দেয়। ভারত সরকার আমাদের আশ্বস্ত করেছে।’

তিনি বলেন, ‘যারা আজকে আত্মসমর্পণ করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছেন আমরা আপনাদের পাশে আছি। আপনারা ভয় পাবেন না, আপনাদের পুনর্বাসনের জন্য সবকিছুই করা হবে।’

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান, পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, ১২-বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. শাহ আলী, আখাউড়া উপজেলা আ.লীগের আহবায়ক অধ্যাপক জয়নাল আবেদিন প্রমুখ।