শ্রীপুরে কেজি স্কুলের ছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন, থানায় মামলা

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি: কোমলমতি শিশুদের দোকানে ডেকে নিয়ে উত্যক্ত ও যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উঠায় গণপিটুনির ভয়ে এক মুদি দোকানদার গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বরামা গ্রামে।

অভিযুক্ত একই এলাকার আব্দুল সাদির মিয়ার ছেলে আব্দুল আউয়াল ওরফে আউয়াল ক্বারী (৪৫)। সে বরামা মাদ্রাসা সংলগ্ন এলাকার মুদি ব্যবসায়ী।

স্থানীয় বরামা একাডেমি স্কুলের নার্সারী শিক্ষার্থী এক শিশুকে নিপীড়নের খবর প্রচার হয়। এরপর এমন আরও ঘটনার শিকার শিশুদের পরিবারের সদস্যরা ওই অভিযুক্তকে ধাওয়া করলে সোমবার সকালে সে দোকান ছেড়ে পালিয়ে যায়।

বরামা গ্রামের একটি প্রাইভেট প্রতিষ্ঠানের দিনমজুর বাবা জানান, গত শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে তার শিশু কন্যাকে অভিযুক্ত আব্দুল আউয়াল চকলেটের প্রলোভন দেখিয়ে দোকানের ভেতর ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে ধর্ষণের চেষ্টা করলে শিশুটি কান্নাকাটি শুরু করে। পরে দ্রুত কাপড়চোপড় পরিয়ে চকলেট হাতে দিয়ে দোকান থেকে বের করে দেয়। ঘটনার পর শিশুটি বাড়িতে ফিরে গিয়ে তার মা’কে জানায়।

সোমবার সকালে শিশুর বাবা এ ঘটনা জানতে পেরে এলাকার লোকজনকে জানায়। এলাকাবাসী অভিযুক্তের বিরুদ্ধে একইরকম আরও একাধিক ঘটনা প্রকাশ করে। কেউ লোকলজ্জার ভয়ে আগে এসব প্রকাশ করেনি বলে জানায়। এক পর্যায়ে এলাকার লোকজন অভিযুক্তকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে উদ্যত হয়। এসময় ওই অভিযুক্ত এলাকাবাসীর উদ্দেশ্য আঁচ করতে পেরে দোকান বন্ধ করে গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় শিশুর দিনমজুর বাবা সোমবার শ্রীপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান বিজ্ঞাপন চ্যানেলকে জানান, অভিযুক্তের ব্যাপারে আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ গ্রহনের প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে।