শ্রীপুরে গার্মেন্টস শ্রমিক ও দোকান কর্মচারীর অপমৃত্যু

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ গাজীপুরের শ্রীপুরে এক গার্মেন্টস শ্রমিক ও দোকান কর্মচারীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে শ্রীপুর থানা পুলিশ। শনিবার দুপুরে উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের টেপিরবাড়ি ও মাওনা চৌরাস্তা থেকে লাশ দুটি উদ্ধার করা হয়।

নিহতরা হলেন তানিয়া আক্তার (১৭), কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলার হুগলাকান্দি গ্রামের রুহুল আমীনের স্ত্রী। সুমন ওরফে ডাপলু (২০), সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার বিনাজোড়া গ্রামের সুরেস সাহার ছেলে।

শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জামিল রাশেদ জানান, গত ৩ মাস আগে রুহুল আমিনের সাথে তানিয়ার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে স্বামী-স্ত্রী টেপিরবাড়ী গ্রামের আবুল কাশেমের বাড়ীতে ভাড়া থেকে স্থানীয় বেহালা টেক্সটাইল কারখানায় শ্রমিকের চাকুরী করতো। শনিবার সকাল ৭টায় স্বামী রুহুল ব্যাক্তিগত কাজে বের হয়ে যায়। দু’ঘন্টা পর ৯টায় সে বাসায় এসে দেখে ঘরের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। এসময় তাঁর স্ত্রীকে ডাকাডাকি করে কোন সারা শব্দ না পেয়ে প্রতিবেশীদের সহায়তায় ঘরের দরজা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে। পরে তানিয়াকে ঘরের আঁড়ার সাথে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

অপরদিকে, শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) হারুন-অর রশিদ জানান, নিহত সুমন মাওনা বাজার রোডের ফারুক মার্কেটের (ওয়ান টু ৯৯) নামের এক দোকানের কর্মচারী। শুক্রবার রাতে দোকান বন্ধ করে অন্যান্য কর্মচারীদের সাথে সে মার্কেটের ৩য় তলায় নির্দ্দিষ্ট কক্ষে ঘুমাতে যায়। সকলে ঘুমিয়ে পড়লে সে রাতের কোন এক সময় দোকানের গোডাউনে রশিতে ঝুলে আত্বহত্যা করে। পরে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।