শ্রীপুরে রাস্তায় ফেলে স্ত্রীকে নির্যাতন, গ্রেফতার ৫

নির্যাতন

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি: গাজীপুরের শ্রীপুরে দিনে দুপুরে প্রকাশ্যে স্ত্রীকে নির্যাতনে অভিযুক্ত স্বামী মো: ইব্রাহীম (৩৮) সহ ৫জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ইব্রাহীম শ্রীপুর উপজেলার গোদারচালা গ্রামের ফজলুল হকের ছেলে।

রোববার তাকে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ জানায়, গত ২০ জানুয়ারী ইব্রাহীম তার স্ত্রীকে খাবারের টাকা চাওয়ায় শ্রীপুরের এমসি বাজার এলাকায় প্রকাশ্যে মাথা, নাক, মুখসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে লাথি, জুতাপেটা করে। এসময় স্ত্রীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন দৃশ্যটি ভিডিও ধারণ করে। ভিডিওচিত্রটি এক দর্শক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার দিলে তা ভাইরাল হয়ে উঠে।

নির্যাতনের শিকার স্ত্রী ফরিদার আগের সংসারে তিনটি সন্তান রয়েছে। তাঁর বাবা বাড়ি পার্শ্ববর্তী যুগীরসিট গ্রামে। তিন সন্তান ও স্বামীসহ ফরিদা তাঁর পূর্বের স্বামীর রেখে যাওয়া বাড়ীতে বসবাস করতো। মাদক ব্যবসার সাথে ইব্রাহিমের সম্পৃক্ততা থাকার অভিযোগও রয়েছে।

নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ ফরিদা আক্তার জানান, গত সাত বছর আগে তিন সন্তান রেখে তার স্বামী ডা: আব্দুল জলিল মারা যান। স্বামী মারা যাওয়ার আগে একই উপজেলার মুলাইদ এলাকায় বসতবাড়ি রেখে যান। সেখানেই তিনি সন্তানদের নিয়ে বসবাস করেন।

এদিকে, গোদারচালা এলাকার ইব্রাহিম সম্পত্তির লোভে ফুসলিয়ে ফরিদাকে বিয়ে করেন। আগেই ইব্রাহিমের সংসারে প্রথম স্ত্রী ছিল। পরে বিভিন্ন সময় টাকা-পয়সার জন্য ইব্রাহীম তার ওপর নির্যাতন করতে থাকে। এরই এক পর্যায়ে প্রথম স্বামীর রেখে যাওয়া মুলাইদের বাড়িটি বিক্রির জন্য ইব্রাহীম চাপ প্রয়োগ করতে থাকে। সম্প্রতি ইব্রাহীম তৃতীয় আরেকটি বিয়ে করে বউ বাড়ীতে এনে তুলে। এনিয়ে গত কয়েকদিন যাবৎ তাদের সংসারে সম্পর্কের টানাপোড়েন শুরু হয়। ফরিদার ভরণনপোষণও বন্ধ করে দেয় ইব্রাহীম। শনিবার স্বামীর কাছে খাবারের টাকা চাইলে সে বেদম মারধোর শুরু করে। পরে, ফরিদা স্বামীর অত্যাচার থেকে বাঁচতে পালিয়ে বাড়ির পাশে এমসি বাজার পর্যন্ত চলে আসে। ইব্রাহীম সেখানে তার পথরোধ করে বেধড়ক মারধোর শুরু করে।

অভিযুক্ত ইব্রাহীম জানান, তার স্ত্রীর মানসিক সমস্যা আছে। সে আত্মহত্যা করার জন্য বাড়ী থেকে বের হয়েছিল। তাই তাকে জোর করে বাড়ীতে ফিরিয়ে আনার সময় কিছু মারধোর করতে হয়েছে।

শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সৈয়দ আজিজুল হক বিজ্ঞাপন চ্যানেলকে জানান, গৃহবধূ ফরিদা আক্তারের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে ইব্রাহীম ও তার শ্বাশুড়ী জামিলা বেগম (৪৭), তৃতীয় স্ত্রী মৌরী আক্তারকে (২৫), তার দুই বোন নাসরিন আক্তার (২২) এবং ফারজানা আক্তারকে (১৯) আটক করা হয়েছে। রোববার সন্ধ্যায় তাদের নিজ বাড়ী থেকে আটক করা হয়। আটককৃতরা ফরিদাকে মারধোর, গালিগালাজ ও বাড়ী ছাড়াসহ বিভিন্ন রকম হুমকি দিত।