সপ্তাহের রাশিফল : ২৮ জানুয়ারি থেকে ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ পর্যন্ত

মেষ রাশি (২১ মার্চ-২০ এপ্রিল) কর্মস্থলে সম্মান ও মর্যাদা বাড়বে। রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্তদের জন্য সময়টি সম্ভাবনাময়। যোগাযোগমূলক কাজের ক্ষেত্রে সাফল্য পাবেন। আয় উপার্জন বৃদ্ধির ক্ষেত্রে আরও সক্রিয়তার প্রয়োজন হবে। কাজে দক্ষতা অর্জনের চেষ্টা করুন। বয়োজ্যেষ্ঠ কারও কারও সঙ্গে মতের অমিল হতে পারে। বিতর্ক এড়িয়ে চলুন। যানবাহনের বিষয়ে সতর্ক থাকুন।

বৃষ রাশি (২১ এপ্রিল-২১ মে) ভাগ্যোন্নয়নে বিশেষ কারও দিকনির্দেশনা লাভ করবেন। আধ্যাত্মিক বিষয়ের প্রতি অনুরাগ বাড়বে। তীর্থ ভ্রমণ হতে পারে। পেশা কিংবা উচ্চশিক্ষার্থে বিদেশ ভ্রমণ হতে পারে। কর্মক্ষেত্রে ভুলবোঝাবুঝি এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন। পিতৃস্বাস্থ্যের বিষয়ে সচেতন থাকলেই ভালো করবেন। আয় উপার্জন বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে।

মিথুন রাশি (২২ মে-২১ জুন) আর্থিক কার্যক্রম থেকে মূলধনী লাভের সুযোগ পাবেন।  ব্যবসায়ের সঙ্গে সম্পৃক্তরা আগের ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার সুযোগ পেতে পারেন। যে কোনো ঝুঁকি গ্রহণের ক্ষেত্রে বাড়তি সতর্কতার প্রয়োজন হবে। উত্তরাধিকারসূত্রে সম্পত্তির মালিকানা লাভ করতে পারেন। প্রবাসে বিশেষ কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হতে পারে। কর্মস্থলে সাহস ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের জন্য পুরষ্কৃত হতে পারেন।

কর্কট রাশি (২২ জুন-২২ জুলাই) বৈদেশিক বাণিজ্যের সঙ্গে সম্পৃক্তদের জন্য সময়টি অনুকূল হতে পারে। দাম্পত্য সম্পর্ক ভালো যাবে। ব্যবসায়িক কাজকর্মে নতুন কোনো চুক্তি হতে পারে। সামাজিক কোনো অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পারেন। অবিবাহিতদের বিয়ের যোগ রয়েছে। ভাগ্যোন্নয়ণে বিশেষ কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হতে পারে। কোনো খবরে শোকগ্রস্ত হওয়ার আশংকা রয়েছে।

সিংহ রাশি (২৩ জুলাই-২৩ অগাস্ট) স্নায়ুবিক কিংবা বিপাকক্রিয়ায় কোনো ধরনের সমস্যা দেখা যেতে পারে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। দাম্পত্য সম্পর্কের ক্ষেত্রে সন্দেহপ্রবণতা কারও কারও ক্ষেত্রে মানসিক অশান্তির কারণ হতে পারে। স্বামী/স্ত্রীর শরীর স্বাস্থ্যের প্রতি যত্মবান হন। কোনো ধরনের অসুস্থতাকে অবহেলা করা ঠিক হবে না। যে কোনো ধরনের দুর্ঘটনা এড়াতে দরকার সচেতনতা। ধৈর্যের সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবেলার চেষ্টা করুন।

কন্যা রাশি (২৪ অগাস্ট-২৩ সেপ্টেম্বর) মনের মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ হতে পারে। প্রেমের সম্পর্ক ভালো যাবে। ক্রীড়ায় সাফল্য লাভের যোগ রয়েছে। সন্তানের সাফল্য আনন্দ পাবেন। নব দম্পতির সন্তানলাভের যোগ রয়েছে। সাময়িক শারীরিক সমস্যায় ভুগতে পারেন। ছোটখাট কোনো রোগকে অবহেলা করা ঠিক হবে না। অসচেতনতায় ছোট রোগই একসময় বড় হয়ে যায়। কর্মস্থলে সহকর্মীদের সঙ্গে কোনো বিষয়ে মতোবিরোধ এড়াতে সরাসরি কথা বলুন।

তুলা রাশি (২৪ সেপ্টেম্বর-২৩ অক্টোবর) আপনার কোনো আশা আকাঙ্ক্ষা পূরণ হতে পারে। আবাসন সংক্রান্ত বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। মাতৃস্বাস্থ্য মোটামুটি ভালো যেতে পারে। হার্ট কিংবা চোখের কোনো সমস্যা অবহেলা করা ঠিক হবে না। প্রেমের সম্পর্কে ভুলবোঝাবুঝি হতে পারে। শারীরিক সুস্থতার জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। সন্তানের বিষয়ে সচেতন থাকুন।

বৃশ্চিক রাশি (২৪ অক্টোবর-২২ নভেম্বর) ব্যক্তিগত যোগাযোগ বেড়ে যাবে। স্বল্প দূরত্বে কোথাও বেড়াতে যাওয়ার সুযোগ পেতে পারেন। ভাগ্যোন্নয়ণে সাহসী কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হতে পারে। বিশেষ কোনো প্রত্যাশা পূরণে ধৈর্য ধরে অপেক্ষার প্রয়োজন হতে পারে। প্রেমের সম্পর্কে অপ্রত্যাশিত কোনো ঘটনার সম্ভাবনা রয়েছে। ভ্রমণের ক্ষেত্রে মৌসুমী রোগব্যাধির বিষয়ে সচেতন থাকার প্রয়োজন হবে।

ধনু রাশি (২৩ নভেম্বর-২১ ডিসেম্বর) আর্থিক দিক মোটামুটি ভালো যাবে। পাওনা অর্থ আদায় হতে পারে। ব্যাংকিং সংক্রান্ত কাজে ব্যস্ততা বাড়তে পারে। গৃহে অতিথি আসতে পারে। চোখের সমস্যাকে অবহেলা করা ঠিক হবে না। কারও কারও ক্ষেত্রে নতুন আত্মীয়তার সম্পর্ক তৈরি হতে পারে। ভ্রমণের ক্ষেত্রে সচেতন থাকুন। কারও কারও ক্ষেত্রে ভ্রমণের সূচি পরিবর্তন হতে পারে। আপনার কোনো প্রত্যাশা পূরণ হতে পারে।

মকর রাশি (২২ ডিসেম্বর-২০ জানুয়ারি) শরীর ও মন মোটামুটি ভালো যাবে। হৃদপিণ্ড সংক্রান্ত বিষয়ে সতর্ক থাকার প্রয়োজন হবে। আয় ব্যয়ের ভারসাম্য বজায় রাখার চেষ্টা করুন। সাময়িক আর্থিক সংকটে ভুগতে হতে পারে। চোখের সমস্যা অবহেলা করা ঠিক হবে না। কোথাও বেড়াতে যেতে পারেন। মনের কোনো আশা আকাঙ্ক্ষা পূরন হতে পারে।

কুম্ভ রাশি (২১ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি) ব্যয় বাড়বে। লোভের ফাঁদে পা দিলেই ভুল করবেন। এ বিষয়ে সতর্ক থাকুন। সাময়িক মনোদৈহিক সমস্যায় ভুগতে পারেন। কাজকর্মে উৎসাহ পেতে রুটিন অনুসরণ করে কাজে লেগে পড়ুন। আর্থিক দিক মোটামুটি ভালো যাবে। পাওনা আদায়ে তাগাদা দিন। ভ্রমণ হতে পারে। ব্যক্তিগত যোগাযোগ ফলপ্রসু হবে।

মীন রাশি (১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ) আয় উপার্জন বৃদ্ধির সুযোগ পেতে পারেন। বন্ধুদের সঙ্গে যোগাযোগ হতে পারে। বড় ভাইবোনের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো যাবে। প্রয়োজনে তাদের আন্তরিক পরামর্শ ও সহযোগিতা পেতে পারেন। অসুস্থ কাউকে দেখতে যেতে পারেন। পাওনা অর্থ হাতে পেতে পারেন। আয় ব্যয়ের ভারসাম্য বজায় রাখার চেষ্টা করুন।