‘সাহিত্যের ইতিহাসে স্থায়ী হয়ে থাকবেন সৈয়দ হক’

২৭ ডিসেম্বর ‘সৈয়দ হক জয়ন্তী’

স্টাফ রিপোর্টার : সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের মৃত্যুতে বগুড়ায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে শোকসভা হয়েছে।

শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে শহরের শহীদ টিটু মিলনায়তনের রোমেনা আফাজ মুক্তমঞ্চে এ সভার আয়োজন করা হয়।

সভায় সৈয়দ হকের কবিতা পাঠ, গান ও কবির কর্মময় জীবনের ওপর আলোচনা করা হয়।

জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি তৌফিক হাসান ময়নার সভাপতিত্বে শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় জোটের সহ-সভাপতি আব্দুল্লাহেল কাফি তারা, আতিকুর রহমান মিঠু, সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ সিদ্দকী, জোটের সাবেক সভাপতি মনোয়ারুল ইসলাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবিএম জিয়াউল হক বাবলা, নজরুল পরিষদ সভাপতি অ্যাডভোকেট মনতেজার রহমান মন্টু, বর্তমান কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক আলমগীর কবির, সাংগঠনিক সম্পাদক রাকিব জুয়েল, দপ্তর সম্পাদক শুভ ইসলাম, প্রচার সম্পাদক এইচ আলিম, নির্বাহী সদস্য শাহনাজ পারভিন শিরি, আসাদুর রহমান খোকন, জোটের প্রতিনিধি, অ্যাডভোকেট পলাশ খন্দকার, সুকুমার দাস, জয়ন্ত দেব, ইসলাম রফিক, নুরুন নবী, অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম চৌধুরী বক্তব্য রাখেন।

সভায় বক্তারা বলেন, প্রিয় কবি সৈয়দ হক বাংলার মানুষের কথা বলেছেন। তার অমর সাহিত্য রচনা দিয়ে বাংলা সাহিত্যকে করেছেন সমৃদ্ধ। শুধু সাহিত্য রচনার মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিলেন না তিনি। চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। করেছেন সাংবাদিকতা। ছিলেন গীতিকার। লিখেছেন মঞ্চ নাটক। সব্যসাচী প্রিয় কবি সৈয়দ শামসুল হকের অবদান কখনও ভোলার নয়। তিনি বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে স্থায়ী হয়ে থাকবেন হাজার হাজার বছর।

অপরদিকে নাটকের অংশ বিশেষ উপস্থাপনা করেন দ্বীন মোহাম্মদ দ্বিনু, কবিতা আবৃত্তি করেন শরীফ মজুমদার, রাকিব জুয়েলম ফজলে রাব্বী।