১ থেকে ৭ এপ্রিল ২০১৭ পর্যন্ত ১২ রাশির পূর্বাভাস

মেষ রাশি (২১ মার্চ-২০ এপ্রিল): কোথাও বেড়াতে যেতে পারেন। আত্মীয় স্বজনের সঙ্গে যোগাযোগ হতে পারে। ছোট ভাই বোনের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো যাবে। মনের কোনো আশা পূরণ হতে পারে। প্রযুক্তি আসক্তি থেকে বেরিয়ে আসতে পারলে ভালো করবেন। প্রেমের সম্পর্ক সাময়িকভাবে কম ভালো যাবে। পেশাক্ষেত্রে দায়দায়িত্ব বাড়বে। শরীর কম ভালো যেতে পারে।

বৃষ রাশি (২১ এপ্রিল-২১ মে): পাওনা টাকা আদায় হতে পারে। আর্থিকভাবে লাভবান হতে পারেন। গৃহে অতিথি আসতে পারে। মাইগ্রেইন কিংবা চক্ষু সংক্রান্ত কোনো সমস্যা থাকলে অবহেলা করা ঠিক হবে না। দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। স্বল্প দূরত্বে কোথাও ভ্রমণ হতে পারে। কারও কারও ক্ষেত্রে আবাসন সংক্রান্ত কাজে ব্যস্ততা বাড়বে। সন্তানের বিষয়ে আরও মনোযোগী হলে ভালো করবেন।

মিথুন রাশি (২২ মে-২১ জুন): শরীর ও মন মোটামুটি ভালো থাকবে।  ব্যক্তিগত কোনো উদ্যোগ ফলপ্রসু হতে পারে। তথ্যপ্রযুক্তির সঙ্গে সম্পৃক্তরা লাভবান হতে পারেন। মিডিয়া ব্যক্তিত্বরা পেশাগত উন্নয়নে বিশেষ কোনো সুযোগ পেতে পারেন। কোথাও বেড়াতে যেতে পারেন। ভ্রমণের ক্ষেত্রে একটু সচেতন হলে ভালো করবেন। বিতর্ক এড়িয়ে চলুন। মাতৃস্বাস্থ্যের খবর নিন।

কর্কট রাশি (২২ জুন-২২ জুলাই): ব্যয় বৃদ্ধি পাবে। অতীতের কোনো কাজের ফল ভোগ করতে পারেন। কারও কারও ক্ষেত্রে হাসপাতাল কিংবা ক্লিনিকে যাওয়ার প্রয়োজন হতে পারে। প্রযুক্তি আসক্তি মূল্যবান সময় অপচয়ের অন্যতম কারণ হতে পারে। দীর্ঘমেয়াদী সাফল্য লাভের জন্য এ বিষয়ে নিজেকে সংযত রাখার চেষ্টা করুন। কারও ব্যক্তিত্বে আঘাত করে কথা বলার কারণে সম্পর্কে নেতিবাচক প্রভাব দেখা যেতে পারে। কোথাও বেড়াতে যেতে পারেন।

সিংহ রাশি (২৩ জুলাই-২৩ আগস্ট): শারীরিক ও মানসিক উদ্যম বাড়বে। সামাজিক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত হতে পারেন। বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে সময় কাটানোর ‍সুযোগ পেতে পারেন। বড় ভাই বোনের পরামর্শ কিংবা সহযোগিতা পেতে পারেন। আয় উপার্জন বৃদ্ধির সুযোগ পেতে পারেন। ব্যয় বাড়বে। কোনো উৎস থেকে অর্থ পেতে পারেন। পাওনা অর্থ আদায়ে তাগাদা দিন।

কন্যা রাশি (২৪ আগস্ট-২৩ সেপ্টেম্বর): চাকুরিপ্রার্থীরা আশাব্যঞ্জক কোনো খবর আশা করতে পারেন। কারও কারও ক্ষেত্রে নতুন চাকুরি লাভ কিংবা পেশা পরিবর্তনের সুযোগ তৈরি হতে পারে। অনলাইন মার্কেটপ্লেসের সঙ্গে সম্পৃক্তদের জন্য সময়টি সাফল্য লাভের জন্য সহায়ক হবে। চলাফেরায় সাবধান থাকুন।

তুলা রাশি (২৪ সেপ্টেম্বর-২৩ অক্টোবর): কাজ ফেলে না রাখা যদি আপনার অভ্যেস হয় তবে ভাগ্যোন্নয়নের পথে আপনি একধাপ এগিয়ে যাবেন। কারও কারও ক্ষেত্রে বিদেশযাত্রার যোগ রয়েছে। প্রযুক্তি ব্যবহার আপনার পেশাগত উন্নয়ণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। কারও কারও ক্ষেত্রে তীর্থ ভ্রমণ হতে পারে। বড় ভাই বোনের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রেখে চলার চেষ্টা করুন।

বৃশ্চিক রাশি (২৪ অক্টোবর-২২ নভেম্বর): গোপন কোনো কাজকর্মে সম্পৃক্ত হতে পারেন। সামাজিকভাবে গ্রহণযোগ্য নয় এমন সম্পর্ক কিংবা আচরণ থেকে নিজেকে মুক্ত রাখার চেষ্টা করুন। ট্যাক্স সম্পর্কিত কাজে ব্যস্ততা বাড়তে পারে। পেশা কিংবা উচ্চশিক্ষার্থে প্রবাস যাত্রা হতে পারে। কর্মক্ষেত্রে প্রভাবশালী কারও সহযোগিতা আশা করতে পারেন। সামাজিক সুনাম ও মর্যাদা বাড়বে। আয় উপার্জন বাড়তে পারে।

ধনু রাশি (২৩ নভেম্বর-২১ ডিসেম্বর): ব্যবসায়িদের জন্য সময় অনুকূল থাকবে। নতুন কোনো বিষয়ে চুক্তি হতে পারে। কোনো খবরে শোকগ্রস্ত হওয়ার আশংকা রয়েছে। আলস্য কাটিয়ে উঠতে না পারলে সাময়িকভাবে সময় কিছুটা প্রতিকূল থাকতে পারে। প্রবাসে অবস্থানরত স্বজনের দ্বারা লাভবান হতে পারেন। বৈদেশিক বাণিজ্যে লাভের যোগ রয়েছে। অবিবাহিত কারও কারও ক্ষেত্রে বিয়ের সম্ভাবনা রয়েছে।

মকর রাশি (২২ ডিসেম্বর-২০ জানুয়ারি): সাময়িকভাবে শরীর কম ভালো যেতে পারে। আহার বিহারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। কর্মক্ষেত্র সাময়িকভাবে চ্যালেঞ্জিং হতে পারে। দাম্পত্য সম্পর্ক ভালো যাবে। কোনো বিষয়ে চুক্তি হতে পারে। উত্তরাধিকারসূত্রে লাভবান হতে পারেন। শত্রুমুক্ত থাকতে বিতর্ক এড়িয়ে চলুন। ভাগ্যোন্নয়ণে সাময়িক প্রতিবন্ধকতার শিকার হতে পারেন। বিনিয়োগে অভিজ্ঞ কারও পরামর্শ নিলেই ভালো করবেন।

কুম্ভ রাশি (২১ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি): আনন্দ বিনোদনে সময় কাটানোর ‍সুযোগ পেতে পারেন। মনের মানুষের সঙ্গে দেখা হতে পারে। কর্ম পরিবেশ অনুকূল থাকতে পারে। অবিবাহিত কারও কারও ক্ষেত্রে বিয়ের আলোচনা হতে পারে। গোপন সম্পর্কের ক্ষেত্রে নিজেকে সংযত রাখার চেষ্টা করুন। সামাজিকভাবে গ্রহণযোগ্য নয় এমন কিছুতে না জড়ালেই ভালো করবেন।

মীন রাশি (১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ): আপনার মনের কোনো আশা পূরণ হতে পারে। কারও কারও ক্ষেত্রে আবাসন সংক্রান্ত বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। আনন্দ বিনোদনে সময় কাটানোর ‍সুযোগ পেতে পারেন। নব দম্পতির সন্তান লাভের চেষ্টায় সাফল্য আসতে পারে। কারও কারও ক্ষেত্রে কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যা দেখা যেতে পারে। আহারবিহারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।