৫৭ ধারায় সাংবাদিকসহ ৪জনের বিরুদ্ধে কাপাসিয়ার ‘গরু চোরের’ মামলা!

বিজ্ঞাপন চ্যানেল রিপোর্ট: গরু চুরির নিউজ প্রকাশ করায় গাজীপুরে সাংবাদিকসহ চারজনের বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা হয়েছে। ‘গরু চুরিতে অভিযুক্ত’ কাপাসিয়ার বারিষাব ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড চরদুর্লভ খাঁ গ্রামের মেম্বার সুমন বেপারী বাদী হয়ে গত ২৫ সেপ্টেম্বর গাজীপুর আদালতে মামলাটি করেন।

মামলার আসামিরা হলেন দেশের শীর্ষস্থানীয় অনলাইন গণমাধ্যম বিজ্ঞাপন চ্যানেল এর এডিটর-ইন-চিফ মোঃ সাইফুল ইসলাম মোল্লা, চরদুর্লভ খাঁ গ্রামের বাসিন্দা স্বপন ফরাজী, আলম ও ইয়াহিয়া।মামলার আবেদনে প্রতিবেদনের মূল বিষয়ের কোনো প্রতিবাদ করেননি বাদী।

বৃহস্পতিবার রাতে কাপাসিয়া থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মনিরুজ্জামান খান বিষয়টি নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের বলেন, আদালতের নির্দেশে মামলার তদন্ত চলছে।

গত ২৬ আগস্ট ওই ইউনিয়নের চরদুর্লভ খাঁ গ্রামের ফরাজী বাড়ির জামাই আবদুল মতিনের পাশের বাঘুয়া থেকে বর্গা নেওয়া একটি গরু চুরি হয়। অনেক খোঁজাখুজির পর তার গরুটি সুমন মেম্বারের বাড়িতে দেখতে পেয়ে স্থানীয়  লোকজন সেখান  থেকে গরুটি উদ্ধার করে ২৭ আগস্ট সকাল ৮টায় মতিনের কাছে বুঝিয়ে দেন বলে জানা যায়।

এ নিয়ে বিজ্ঞাপন চ্যানেলসহ কয়েকটি পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হলে দেশজুড়ে চলে ব্যাপক তোলপাড়।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সুমন মেম্বার ২৯ আগস্ট মঙ্গলবার বেলা ২টার দিকে নিউজটি ডিলিট করে দেয়ার জন্য ১০/১৫ জন লোক নিয়ে বিজ্ঞাপন চ্যানেলের অফিসে আসেন। এসময় সুমন মেম্বার বিজ্ঞাপন চ্যানেলের এডিটর-ইন-চিফ মোঃ সাইফুল ইসলাম মোল্লাকে হুমকি দিয়ে বলেন, “কাপাসিয়ায় সুমন মেম্বারের বিরুদ্ধে গরু চুরির অভিযোগ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদ রিমুভ না করলে আপনার বিরুদ্ধে অগণিত মামলা হবে।”

বিজ্ঞাপন চ্যানেলের এডিটর-ইন-চিফ মোঃ সাইফুল ইসলাম মোল্লাকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির ঘটনায় কাপাসিয়া ও দেশের বিভিন্ন এলাকায় কর্মরত বস্তুনিষ্ঠ সংবাদকর্মী এবং সংস্কৃতিকর্মীরা নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

এছাড়া ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইটস ডিপার্টমেন্ট, বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন-বনপা, জাতীয় অনলাইন প্রেস ক্লাব, বাংলাদেশ মানবাধিকার ব্যুরো, ওয়ার্ল্ড সেফগার্ড এন্ড মিডিয়া লিমিটেড, গণতন্ত্রী পার্টি সহ বিভিন্ন সংগঠন এ ঘটনায় নিন্দা জানান।